মঙ্গলবার, এপ্রিল ২০
Shadow

সৌদি নারীদের ১০টি অধিকার

প্রাইম আন্তর্জাতিক :

চলতি সপ্তাহে সৌদি আরবের বাদশাহ ঘোষণা করেছেন, আগামী বছরের জুন মাস থেকে দেশের নারীরা গাড়ি চালানোর অনুমতি পাবেন। একনজরে দেখে নিন কবে আর কী কী অধিকার পেয়েছেন সৌদি নারীরা, সে দেশের নারী জাগরণে যা মাইলফলক হয়ে থাকবে।

১৯৫৫ : মেয়েদের জন্য প্রথম স্কুল
সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে এখন বিপুলসংখ্যক ছাত্রীকে স্কুলে যেতে দেখা যায়। কিন্তু আজ থেকে ৬২ বছর আগে চিত্রটা এমন ছিল না। সৌদি আরবে মেয়েদের প্রথম স্কুল দার আল হানান।

১৯৭০ : মেয়েদের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়
রিয়াদ কলেজ অব এডুকেশন সৌদি নারীদের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়, যেটি চালু হয় ১৯৭০ সালে।

২০০১ : নারীদের জন্য পরিচয়পত্র
একবিংশ শতাব্দীর শুরুতে এসে পরিচয়পত্র পাওয়ার ক্ষেত্রে নারীদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়। সৌদি আরবে নারীদের পরিচয়পত্র নিতে হলে পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি প্রয়োজন হতো। ২০০১ সালে সৌদি নারীরা পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই পরিচয়পত্র নেয়ার সুযোগ পান।

২০০৫ : জোরপূর্বক বিয়ে নিষিদ্ধ
২০০৫ সালে সৌদি আরবে নারীদের জোরপূর্বক বিয়ে নিষিদ্ধ হয়।

২০০৯ : প্রথম নারী মন্ত্রী
২০০৯ সালে বাদশাহ আবদুুল্লাহ সৌদি আরবের কেন্দ্রীয় সরকারে প্রথম নারী মন্ত্রী নিয়োগ করেন। নূরা আল কায়েজ নারীবিষয়ক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী হিসেবে সে বছর সরকারে যোগ দেন।

২০১২ : অলিম্পিকে প্রথম নারী অ্যাথলিট
২০১২ সালে প্রথমবারের মতো অলিম্পিকে অংশ নেন সৌদি নারীরা। তাদের মধ্যে সারাহ আত্তার নারীদের ৮০০ মিটার দৌড়ে লন্ডন অলিম্পিকের ট্র্যাকে নেমেছিলেন হিজাব পরে। আসর শুরুর আগে নারীদের অংশগ্রহণ করতে না দিলে সৌদি আরবকে অলিম্পিক থেকে বাদ দেয়ার কথা জানিয়েছিল আইওসি।

২০১৩ : সাইকেল-মোটরসাইকেল চালানো
২০১৩ সালে সাইকেল ও মোটরসাইকেল চালানোর অনুমতি পান সৌদি নারীরা। তবে কিছু নির্দিষ্ট এলাকায় এবং ইসলামী রীতিতে পুরো শরীর ঢেকে এবং কোনো পুরুষ আত্মীয়ের উপস্থিতিতে তা চালানোর অনুমতি দেয়া হয়।

২০১৩ : শূরায় প্রথম নারী
২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাদশাহ আবদুুল্লাহ সৌদি আরবের রক্ষণশীল কাউন্সিল ‘শূরা’য় প্রথমবারের মতো ৩০ জন নারীকে শপথবাক্য পাঠ করান।

২০১৫ : ভোট দেয়া এবং নির্বাচনে অংশগ্রহণ
২০১৫ সালে সৌদি আরবের পৌরসভা নির্বাচনে নারীরা প্রথমবারের মতো ভোট দেয়ার এবং নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ পান। বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে নিউজিল্যান্ড নির্বাচনে নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছিল ১৮৯৩ সালে, জার্মানিতে তা চালু হয় ১৯১৯ সালে। ২০১৫ সালে সৌদি আরবের ওই নির্বাচনে ২০ জন নারী নির্বাচিত হয়েছিলেন।

২০১৭ : সৌদি স্টক এক্সচেঞ্জে প্রথম নারী
২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে সৌদি আরব দেশটির স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারপারসন হিসেবে সারাহ আল সুহাইমির নাম ঘোষণা করে আরেক ইতিহাস রচনা করে।

২০১৮ : গাড়ি চালানোর অনুমতি
গেল ২৬ সেপ্টেম্বর সৌদি আরব নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতিসংক্রান্ত এক আদেশ জারি করে। ২০১৮ সালের জুন মাসে এ আদেশ কার্যকর করা হবে। ফলে নারীদের আর কোনো পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি নিতে হবে না এবং স্বতন্ত্র লাইসেন্স পাবেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.