বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২১
Shadow

কনে বিয়ের পিঁড়িতে, বর আত্মগোপনে!

 নিজস্ব প্রতিবেদক :

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে বিয়ের দিন বর আত্মগোপনে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মুছাপুর ইউনিয়নের ফরিদ উদ্দিন ভূঞা বাড়ির মাহতাব উদ্দিন দুখুর সঙ্গে চরকাঁকড়া ইউনিয়নের পেশকারহাট এলাকার এক মেয়ের বিবাহের দিন তারিখ উভয় পক্ষের সম্মতিতে নির্ধারণ করে বরপক্ষ ও কনেপক্ষ।

দুই পক্ষের সম্মতিতে ১৪ সেপ্টেম্বর বিয়ের দিন ধার্য করা হয়। বিয়ে উপলক্ষে কনের পিত্রালয়ে কনেপক্ষ ২৫০ জনের খাবারের আয়োজন করেন।

এশার নামায পরবর্তী বর কনের পিত্রালয়ে বর সেজে আসার কথা ছিল। কিন্তু বরপক্ষ দিকবেদিক অনেক খোঁজাখুজি করে বরের কোনো সন্ধান পায়নি। বরং বর কনের পিত্রালয়ে বর সেজে আসার পরিবর্তে আত্মগোপনে চলে যায়।

পরবর্তীতে বরপক্ষ ও কনেপক্ষ কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি সৈয়দ মো. ফজলে রাব্বীর শরাপন্ন হয়। বর আত্মগোপনে যাওয়ার খবরে কনেপক্ষ কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করার জন্য কোম্পানীগঞ্জ থানায় আসেন।

উল্লেখ্য, ছেলের মা কনে দেখে প্রছন্দ করে বিয়ের দিন তারিখ নির্ধারণ করে, ছেলে মায়ের প্রছন্দকে সমর্থন করে কনে দেখার প্রয়োজন বোধ করেনি। এলাকায় জনশ্রুতি আছে, বরের বোন ৬ জন এবং কিছু বোন ও বোনের জামাইয়ের প্ররোচনায় বর আত্মগোপনে যায়।

মাহতাব উদ্দিন দুখু বসুরহাট বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আবু কাউছারের ভাগিনা এবং সে বর্তমানে এলিন ফুডে কর্মরত আছে।

এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি সৈয়দ মো.ফজলে রাব্বী জানান, এ বিষয়ে আমার কাছে বর ও কনেপক্ষ আসলে আমি তাদেরকে একটি অভিযোগপত্র দেয়ার কথা বলেছিলাম। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমি কোনো অভিযোগ পায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্রে জানা যায়, বরের অনেক নিকট আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে খোঁজ করে ও শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত বরের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.