শুক্রবার, মে ৭
Shadow

যুবলীগের শ্রেষ্ঠ সাংগঠনিক জেলা ঢাকা দক্ষিণ

নিজস্ব প্রতিবেদক  :

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের ৭২টি সাংগঠনিক জেলার মধ্যে শ্রেষ্ঠ সাংগঠনিক জেলার স্বীকৃতি পেল ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ। আর শ্রেষ্ঠ জেলা সংগঠকের উপাধি পেয়েছেন দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চে দক্ষিণের বর্ধিত সভায় এই ঘোষণা করেন যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী। এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের যতগুলো সাংগঠনিক জেলা ইউনিট রয়েছে, এরমধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ও ঐক্যবদ্ধ ইউনিট হচ্ছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ। আজ আমি ঢাকা মহানগর দক্ষিণকে অফিসিয়াল শ্রেষ্ঠ সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করছি। এর মাধ্যমে যুবলীগের শ্রেষ্ঠ জেলা সংগঠক হিসেবে উপাধি পেলেন যুবলীগের দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। এর আগে সম্রাটকে যুবলীগের আইনকন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছিল।

এসময় ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আমি নিজেকে কখনোই নেতা ভাবি না। আমি অমৃত রাষ্ট্র নায়ক শেখ হাসিনার একজন নিবেদীত কর্মী। আজকে সারা বাংলায় যুব সমাজের অহংকার, যার নেতৃত্বে সারাদেশের যুব সমাজ ঐক্যবদ্ধ যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী আমাদের যে স্বীকৃতি দিলেন, তাতে আমাদের দায়িত্ব আরো অনেক বেড়ে গেল। শ্রেষ্ঠ সংগঠন হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া আমার একার কৃতিত্ব নয়, দক্ষিণের অধীনে সব ইউনিটের নেতাকর্মীদের শ্রমের ফসল। নেতা থেকে কর্মী-সমর্থক সবার আন্তরিক প্রচেষ্টায় আজকের স্বীকৃতি।

যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু ও মাকসুদুর রহমানের যৌথ পরিচালানয় বিশেষ অতিথি ছিলেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশীদ। বক্তব্য রাখেন, দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, যুবলীগ কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান, শিক্ষা প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুল ইসলাম মিজু, ঢাকা দক্ষিণের সহ-সভাপতি মাইনউদ্দিন রানা, সোহরাব হোসেন স্বপন, নাজমুল হোসেন টুটুল, এনামুল হক আরমান, মোরসালিন আহম্মেদ, যুগ্ম সম্পাদক জাফর আহম্মেদ রানা, ওমর ফারুক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভুইয়া, সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য আরমান হক বাবু, এমদাদুল হক এমদাদ প্রমুখ।

যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী আরো বলেন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাই আজ মানবতার প্রতীক। শেখ হাসিনাই আজ বাংলাদেশের প্রতীক। বাংলাদেশকে বিশ্বে সম্মানের শিখরে পৌঁছে দিয়েছেন যিনি, তার নাম রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের হ্যামিলনের বংশীবাদক রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা, যার ডাকে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি মানুষ বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের পাশে। অন্য দিকে বেগম খালেদা জিয়া লন্ডনে ছেলের হাতে বন্দী। যারা ইসলামের দোহাই দিয়ে রাজনীতি করেন, তারা আজ মুসলিম রোহিঙ্গাদের পাশে নেই। বাংলাদেশের মানুষ জানতে চায় বিএনপি জামাতের রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভূমিকা কি? বিশ্ব মানবতার প্রতীক রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা অন্যদিকে বিশ্ব মানবতার শত্রু অং সং সুকি আর বেগম খালেদা জিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published.