বুধবার, এপ্রিল ১৪
Shadow

জাবিতে বৈষম্যের শিকার ভর্তিচ্ছুরা

প্রাইম ডেস্ক :

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ফলাফল প্রকাশে মেধার অবমূল্যায়নের ঘটনা ঘটেছে। বিভিন্ন ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা একাধিক শিফটে নেয়ার কারণে ফলাফলে বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন ভর্তিচ্ছুরা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অদক্ষতায় বলির পাঁঠা হচ্ছে মেধাবী শিক্ষার্থীরা। ফলাফল প্রকাশে ত্রুটিপূর্ণ এ পদ্ধতি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন সচেতন শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে একটি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা একটি শিফটে নেয়ারও জোর দাবি জানিয়েছেন তারা।

জানা যায়, রোববার (৮ অক্টোবর) থেকে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক সম্মান শ্রেণীর ৯ দিনব্যাপী ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এর মধ্যে দুই দিন ধরে ‘এ’ ইউনিটে ৯টি শিফটে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভর্তি ফলাফলে দেখা গেছে, ৫ম শিফটে ১৫ জন মেয়ে এবং ১৪ ছেলে চান্স পেলেও অন্য শিফটে ৩ থেকে ৫ জন করে চান্স পেয়েছে। কোনো শিফটে প্রশ্ন সহজ আবার কোনো শিফটে প্রশ্ন কঠিন হওয়ার কারণে ফলাফল বৈষম্যের শিকার হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। শুধু এ ইউনিট না, একইভাবে ‘ডি’ ইউনিটের পরীক্ষাও দু’দিনে ১০টি শিফটে নেয়া হয়েছে। অন্য ইউনিটগুলোতেও ৪ থেকে ৫টি শিফটে পরীক্ষা নেয়া হবে।

এ পদ্ধতিকে এক ধরনের প্রশ্ন ফাঁসের নামান্তর বলে মনে করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সচেতন শিক্ষকরা। এ বিষয়ে সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক নাসিম আখতার হোসাইন বলেন, দু’দিন ধরে একই ইউনিটের পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে, প্রশ্নের ধরন যদি একই রকম হয় তাহলে বিষয়টি কী দাঁড়ায়। যে শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে যাচ্ছে সে তার বন্ধুকে প্রশ্নের ধরন সম্পর্কে জানাবে না এটা কী কখনো হয়? তিনি উদাহরণ টেনে বলেন, যদি একটি শিফটে প্রশ্ন থাকে কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম তারিখ কবে, প্রশ্নের ধরন যদি একই হয় তাহলে অন্য শিফটের প্রশ্ন থাকবে কাজী নজরুল ইসলামের মৃত্যুর তারিখ কবে। আর যদি প্রশ্নের ধরন ভিন্ন হয় তাহলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৈষম্য তৈরি করা হচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভর্তি পরিচালনা কমিটির এক সদস্য জানান, গত বছর এমনও ঘটনার রেকর্ড রয়েছে যে, একটি শিফট থেকে ৭০-৭৫ শতাংশ চান্স পেয়েছে আর বাকি ৪-৫ শিফট থেকে মাত্র ২৫-৩০ শতাংশ চান্স পেয়েছে। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এ ইউনিটের  (গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদ) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ছয়টি শিফটে। এ অনুষদে ছেলেদের ২৭০টি আসনের বিপরীতে ২ হাজার ৭৩৯ জনের মেরিট লিস্ট এবং মেয়েদের ১৮০টি আসনের বিপরীতে ১ হাজার ৮২৩ জনের মেরিট লিস্ট প্রকাশ করা হয়। ফলাফলে প্রথম শিফটে ৬০৩ জন ছেলে ও ৫১৩ জন মেয়ে এবং দ্বিতীয় শিফটে ৬২১ ছেলে ও ৫২৬ মেয়ে চান্স পায়। এ অনুষদেই চতুর্থ শিফটে ৬৭ ছেলে ও ৩১ মেয়ে চান্স পায়। যদিও প্রত্যেকটি শিফটে প্রায় একই সংখ্যক শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

শিফট পদ্ধতিতে সঠিকভাবে মেধা মূল্যায়ন না হওয়ার কারণে অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাচ্ছেন না, বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বুঝতে পেরেও সমাধানের পথ খুঁজে পাচ্ছেন না।
প্রতিবছর ভর্তি পরীক্ষার সময় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হয়। কিন্তু অজানা কারণে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ বিষয়ে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।

একই ইউনিটের পরীক্ষা একাধিক শিফটে নেয়া হলে সঠিকভাবে মেধা মূল্যায়ন করা সম্ভব কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি ও পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এ মামুন বলেন, তিনি শঙ্কিত দুই দিনে একই ইউনিটের পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে তা কতটা স্বচ্ছ থাকবে। এ পদ্ধতিতে সঠিক মেধা মূল্যায়ন সম্ভব নয়, কিছু তারতম্য থাকবেই। যদি সিট সংখ্যা অনুযায়ী এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্টের ওপর ভিত্তি করে নিদিষ্ট সংখ্যক শিক্ষার্থীকে ফরম উঠানোর সুযোগ দেয়া হয় তাহলে একটি শিফটে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে। একটি শিফটে পরীক্ষা হলে পরীক্ষা পদ্ধতি নিয়ে আর কোনো প্রশ্ন থাকবে না। এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি প্রোভিসি অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন। তবে এ ইউনিটের ডিন অধ্যাপক ড. অজিত কুমার মজুমদার বলেন, প্রশ্নের মান একই রকম হওয়ার কথা। তারপরও যদি ফলাফলে এমন তারতম্য হয় তাহলে সেটা অপ্রত্যাশিত।

চবিতে প্রতি আসনে লড়বে ২৫ শিক্ষার্থী : চবি প্রতিনিধি জানান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের জন্য প্রতিযোগিতা করবেন ভর্তি প্রত্যাশী ২৫ জন শিক্ষার্থী। ৪ হাজার ৯২৪ আসনের বিপরীতে এবার আবেদন করেছেন ১ লাখ ২৫ হাজার ৯৬৯ জন শিক্ষার্থী, যা গত বছরের চেয়ে প্রায় অর্ধেকের কম। তাছাড়া এবার ভর্তি পরীক্ষায় ডাবল চেক পদ্ধতি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) কর্তৃপক্ষ উত্তরপত্র মূল্যায়নের পর তা আবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ পুনঃমূল্যায়ন করবে। ফলাফল নির্ভুল করতেই কর্তৃপক্ষ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার এস এম আকবর হোছাইন বলেন, এ বছর সবচেয়ে বেশি আবেদন জমা পড়েছে ‘এ’ ইউনিটে। বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বিভাগগুলো নিয়ে গঠিত ‘এ’ ইউনিটে ১ হাজার ২১৬টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ৪৩ হাজার ১১৮টি। আর কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটে এক হাজার ৩৪৬টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ২৯ হাজার ৩১৩টি। ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটে ৪৪৮ আসনের বিপরীতে ১৪ হাজার ৩০৪ ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ‘ডি’ ইউনিটে ১ হাজার ১৮১ আসনের বিপরীতে ৩৯ হাজার ৩২২টি আবেদন জমা পড়েছে। তিনি বলেন, ২৬ অক্টোবর থেকে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়ে চলবে ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত। আগের বছরগুলোতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০টি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা হলেও এ বছর থেকে ৪টি ইউনিটে পরীক্ষা হবে। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ, ক্রিমিনোলজি অ্যান্ড পুলিশ সায়েন্স এবং কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের অধীনে বাংলাদেশ স্টাডিজ নামে নতুন বিভাগ চালু করা হয়েছে।

শেকৃবিতে ভর্তি আবেদন শুরু : শেকৃবি প্রতিনিধি জানান, রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন (অনলাইনে) শুরু হয়েছে মঙ্গলবার থেকে। আবেদন প্রক্রিয়া চলবে ১৫ নভেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত। ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১ ডিসেম্বর। ভর্তিচ্ছুরা অনলাইনের মাধ্যমে সপ্তাহের যেকোনো দিন আবেদন করতে পারবেন।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানান, ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে শিক্ষার্থীদের আবেদন অনলাইনে পূরণ করে রকেট বা শিওরক্যাশ মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ফি প্রদান করতে হবে। ফরম পূরণের সময় প্রার্থীর কানসহ পূর্ণাঙ্গ মুখমন্ডল দেখা যাবে এমন একটি পাসপোর্ট আকারের রঙিন ছবি আপলোড করতে হবে। ২০১৬ বা ২০১৭ সালের এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, উচ্চতর গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়গুলোর প্রত্যেকটিতে ন্যূনতম জিপিএ-৩সহ উত্তীর্ণ হতে হবে। এসএসসি ও এইচএসসির প্রত্যেকটিতে কমপক্ষে জিপিএ-৩সহ সর্বমোট জিপিএ ন্যূনতম ৭ থাকতে হবে। এ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪টি অনুষদে মোট আসন সংখ্যা ৬২০টি এবং বিধি মোতাবেক কোটার আসনসমূহ যুক্ত হবে। কৃষি অনুষদে ৩৫০, এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদে ১২০, এনিম্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদে ১০০ এবং ফিশারিজ অ্যান্ড একোয়াকালচার অনুষদে ৫০টি। ভর্তি বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট িি.ংিধঁ.বফঁ.নফ থেকে বিস্তারিত জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.