মঙ্গলবার, মার্চ ২
Shadow

রাস্তার ধারে বৃক্ষ নিধনে সরকারি আইনের অনুমোদন জরুরী

কাল যখন রাতে বাড়ি ফিরছিলাম তখন রাস্তার মধ্যে দিয়ে আহত গাছগুলোর কান্নার শব্দ শুনছিলাম । প্রচুর গাছ কেটে ফেলা হয়েছে । দেখে মনে হচ্ছিল সাইক্লোন বয়ে গেছে এই এলাকার উপর দিয়ে । একটি গাছের মাথাও যেন অবশিষ্ট নেই । বৃক্ষের সবুজ ডগাগুলো এমনভাবে পড়ে আছে আর কাটা গাছ থেকে এমন গন্ধ বেরুচ্ছে যা আমার কাছে হৃদয় বিদারক মনে হয়েছে । গাজীপুরের মাওনার চকপাড়া গ্রামের উপর দিয়ে চলে যাওয়া রাস্তার দুধারের গাছ কাটার ফলে এখন রাস্তাটি প্রায় সবুজ শূণ্য !

বিদ্যুতের খুঁটির তারকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য অনেক গাছের মাথা কেটে দেওয়া হয়েছে । অক্সিজেনের জন্য একদিকে বৃক্ষ রোপন ও আরেকদিকে এভাবে বৃক্ষ নিধন কি ম্যাসেজ দেয় আমাদের ? রাস্তার ধার দিয়ে গাছ রোপনের অনেকগুলো ভালো দিক রয়েছে । বিদ্যুতের খুঁটি রাস্তার ধার দিয়ে নিলে গাছ কাটতে হবে এটা স্বাভাবিক । অন্য কোন উপায়ে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা না করে এভাবে গাছ কাটা অমানবিক বলে মনে করি । কারা এই সমস্ত বিষয়গুলোর দায়িত্বে আছে ? শীতের আগে এমন করে গাছ কেটে দেওয়া হল এখনতো গাছগুলো পানির অভাবে মারাই যাবে !
একদিকে সরকার প্রচুর পরিমানে বৃক্ষ রোপন করার জন্য টাকা ব্যয় করছে । যখন গাজগুলো বড় হচ্ছে তখন বিদ্যুতের খুঁটির জন্য বা অন্যকোন কারণে সেই গাছগুলোই কেটে ফেলা হচ্ছে অথবা অনেকের ব্যক্তিগত স¤পত্তিরগাছগুলোও কেটে ফেলা হচ্ছে বিদ্যুৎ ব্যবস্থার জন্য !রাস্তার ধারে বৃক্ষ কর্তন ও বেশী পরিমানে গাছকাটলে সরকারের অনুমতি লাগার বিষয়টি সরকারের দ্রুত আইনের আওতায় আনা উচিৎ বলে মনে করি ।যারা এভাবে বৃক্ষ নিধন করছে তারা আসলে কার অনুমতিতে কাজটি করলো তার কোন ডকুমেন্ট আছে কিনা তারও কোন পরিস্কার ধারনা পাওয়া যায়নি ।

রাস্তার ধারের গাছ শুধু শোভা বর্ধনের জন্য নয় এটা দুর্ঘটনার নিরাপত্তার জন্যও । যখন এই রাস্তার ধারে আর গাছ থাকবেনা তখন রাস্তার মাটি খসে পড়ে রাস্তা ভাঙ্গনের স্বীকার হবে বেশী, দুর্ঘটনার কারণে যেকোন সময় যেকোন যান রাস্তার নীচে পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বাড়বে এবং এতে করে রাস্তার বাঁকগুলো বুঝতেও সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে ।
সর্বপরি বৃক্ষের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন পূর্বক এই সিদ্ধান্তগুলো থেকে আমাদের সরে আসা খুব প্রয়োজন । সরকারের কাছে বিনীত নিবেদন এই বিষয়টি দৃষ্টিতে আনার ব্যপারে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহন করুন ।

সাঈদ চৌধুরী
সদস্য, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি
ও রসায়নবিদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.