গফরগাঁওয়ে যুবলীগ কর্মীকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে আলমগীর হোসেন (৩৮) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। গতকাল দুপুরে উপজেলার পাগলা থানাধীন উস্থি ইউনিয়নের বুশারবাড়ি গ্রামে তার ওপর হামলা হয়। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্বশত্রæতার জেরে এ হত্যাকান্ড ঘটে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। খবর পেয়ে ঊর্ধ্বতন পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
নিহত আলমগীর হোসেন বুশারবাড়ি গ্রামের মৃত হানিফ মিয়ার ছেলে। স্থানীয় যুবলীগের কর্মী ছিলেন সে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উস্থি গ্রামের মৃত হাছেন আলীর ছেলে মকবুল হোসেন ও পাশের বুশার বাড়ি গ্রামের মৃত হানিফ মিয়ার ছেলে আলমগীর হোসেনের মধ্যে এলাকার আধিপত্য বিস্তারসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মকবুল হোসেনের পক্ষের লোকজনকে স্থানীয় কান্দিপাড়া বাজারের পাশে আলমগীর হোসেন ও তার লোকজন গালাগাল করে।
পরে রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টায় গালাগালির কারণ জানতে বুশার বাড়ি গ্রামে আলমগীরের বাড়ির সামনে মকবুল হোসেন গেলে আলমগীর হোসেন ও তার লোকজন মকবুলকে কুপিয়ে আহত করে। এর জের ধরে গতকাল দুপুরের দিকে পাশের নূড়া পাড়া এলাকায় জনৈক পঁচু মিয়ার দোকানের সামনে মকবুল হোসেনের লোকজন আলমগীর হোসেনকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে।
পরে স্থানীয় লোকজন আলমগীরকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর সে মারা যায়।
পাগলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফয়েজুর রহমান বলেন, ইঞ্জিন চালিত একটি অটো রিক্সা চুরির টাকার ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে আলমগীর খুন হয়েছে। অভিযুক্তদের আটক করতে পুলিশী অভিযান চলছে। এ ব্যাপারে অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয় হবে।