খুঁশিমনের ঘরে হবে ছাউনি,মিতুও ফিরে পাবে স্বাভাবিক জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নিজমাওনা গ্রামের খুঁশিমনের ঘরে ছাউনির ব্যবস্থা করে দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন প্রশাসন্ একই সাথে একই এলাকার ৮বছর বয়সী শিশু মিতুকেও স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার বিষয়েও ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফাতেমাতুজজোহরা।
সোমবার বিকেলে গাজীপুর জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে খুঁশিমন ও মিতুর বাড়িতে উপস্থিত হয়ে এ আশ্বাস দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন শ্রীপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মঞ্জুরুল ইসলাম, স্থানীয় সেচ্ছাসেবী বৃদ্ধা বন্ধু ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা মহিদুল আলম।
শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফাতেমাতুজজোহরা জানান, সম্প্রতি বিভিন্ন মাধ্যমে একজন বৃদ্ধা ও শিশুর মানবেতর জীবনের তথ্য পাওয়া যায়। এরই প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ভোক্তভোগীদের বাড়িতে গিয়ে তাদের অবস্থা সরেজমিন পরিদর্শন করা হয়। পরে খুঁশিমনের ঘরে ছাউনির জন্য প্রয়োজনীয় টিন ও অর্থ বরাদ্ধের বিষয়টি জানানো হয়, এছাড়াও খুঁশিমনের জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা করার জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলীর সাথে আলোচনা করা হবে বরে জানান তিনি।
অপরদিকে একই এলাকার ৮বছর বয়সী শিশু মিতুর বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের লোকজনকে বুঝিয়ে শিশুর পায়ের বাঁধন খুলে তাকে মুক্ত করে দেয়া হয়। শিশু মিতুর জন্য একটি সরকারী সহায়তা কার্ড ও চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থজীবনে ফিরিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেয়া হয়।
উল্লেখ্য কিছিুদিন আগে কালবৈশাখী ঝড়ে খুশিমনের থাকার ঘরের ছাউনি উড়ে যাওয়ায় পর থেকে রোদ বৃষ্টিতে তাকে অন্যত্র স্থানে আশ্রয় নিতে হয়। পৃথিবীতে তার কোন আপনজন বলতে কেউ নেই। তাকে নিয়ে ডেইলি অবজারভারে খুঁশিমনের মন ভালো নেই” শিরোনামে গত ২৭মে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল।
এছাড়াও একই এলাকার শিশু মিতুর মা মারা যাওয়ার পর তার দায়িত্ব নেয়নি কোন আপনজন। তবে তার বাবার দাদী তার দেখাশোনা করছিল। জন্মের ছয়মাস বয়স থেকেই শিশুটিকে খুঁটিতে বেধে রাখা হয়েছিল। মিতুর বয়স এখন ৮বছর। মিতুকে নিয়ে গত ৩জুন অবজারভার অনলাইন ও ৪জুন প্রিন্ট ভার্ষনে সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল।