গফরগাঁওয়ে দুই সহোদরকে গাছের সঙ্গে বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে পূর্ব পারিবারিক কলহের জের ধরে মধ্যযুগীয় কায়দায় দুই সহোদর ভাইকে গাছের সঙ্গে বেধে নির্যাতন করা হয়েছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ নির্যাতিত দুই ভাইকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের ভগ্নীপতি আবু সাঈদকে (৩৭) আটক করা হয়।
গতকাল সকালে এ ঘটনায় মামলা করতে গেলে থানা পুলিশ মামলা না নিয়ে নির্যাতিত কলেজ ছাত্র ইলিয়াসকেও আটক করে থানা হাজতে রেখেছে।

নির্যাতিত দুই ভাই ইলিয়াস (২০) ও ইকরাস (২৫)। তারা উপজেলার চরমছলন্দ কান্দাপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল খালেকর ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শী ও থানায় দায়ের করা অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ বছর আগে চরমছলন্দ কান্দা গ্রামের আব্দুল খালেকের মেয়ে শিউলির সঙ্গে চরমছলন্দ কাচারীপাড়া গ্রামের আছর আলীর ছেলে আবু সাঈদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই শিউলি স্বামীর সংসারে যৌতুকসহ নানা কারণে অত্যাচারিত হয়। অত্যাচার সইতে না পেরে গত ৬ মাস পূর্বে শিউলি তিন সন্তানসহ স্বামীর সংসার ত্যাগ করেন। এ ঘটনার জের ধরে উভয় পরিবারে দ্ব›েদ্বর সৃষ্টি হয়।

গত রবিবার সকালে ইলিয়াস ও ইকরাস তাদের বাড়ির একটি অনুষ্ঠানের জন্য প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করার উদ্দেশ্যে তাদের বোন জামাইয়ের বাড়ির সামনে দিয়ে অটোরিকশাযোগে গফরগাঁও বাজারের দিকে রওয়ানা দেন। পথে বোন-জামাই আবু সাঈদ ও আবু সাঈদের আত্মীয় ইলিয়াস (৩০), রহিম (৪২), হাবিবুর (৩৫), জসিম (৪০), হাফিজ উদ্দিন (৩৬) তাদের অটোরিকশার গতিরোধ করে। ইলিয়াস ও ইকরাসকে টেনে হেচড়ে অটোরিকশা থেকে নামিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। ইলিয়াস ও ইকরাসকে ধরে আবু সাঈদের বাড়ির ভিতরে নিয়ে একটি কড়ই গাছের সঙ্গে বেঁধে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে বেধড়ক আহত করে।

খবর পেয়ে ইলিয়াস ও ইকরাসের পিতা আব্দুল খালেক এলাকাবাসীদের নিয়ে ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা আব্দুল খালেককেও গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করে। এলাকাবাসীর চাপে সন্ত্রাসীরা আব্দুল খালেককে ছেড়ে দেয়। আব্দুল খালেকের পরিবারের লোকজন গফরগাঁও থানা পুলিশকে খবর দিলে থানা পুলিশ ইলিয়াস ও ইকরাসকে উদ্ধার করে। এ সময় বোন জামাই আবু সাঈদ পুলিশের হাতে আটক হয়। রবিবার সন্ধ্যায় ইলিয়াস ও ইকরাস থানা থেকে বের হয়ে আসে। গতকাল সকালে এ ঘটনায় ইলিয়াস থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে পুলিশ ইলিয়াসকে আবার আটক করে।

এ বিষয়ে গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ খান বলেন, ছয় মাস আগে আবু সাঈদ অভিযোগ দায়ের করেন। আবার ইলিয়াস ও একটি অভিযোগ করেন। অর্থাৎ দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ আছে। এজন্য তাদের আটক করা হয়েছে।