জামালপুরে পৃথক ঘটনায় ৬ জনের মৃত্যু

প্রাইম ডেস্ক :

জামালপুরের বকশীগঞ্জে বানের পানিতে ডুবে তিন শিশুসহ পাঁচজন ও সাপের কামড়ে একজনসহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। পৃথক পৃথক স্থানে তাদের মৃত্যু হয়। এছাড়া একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় শেরপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, রবিবার দুপুরে বকশীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের সূর্যনগর পূর্ব পাড়া গ্রামের শাহীন মিয়ার মেয়ে স্বজনী খাতুন (১২), সোলায়মান হোসেনের মেয়ে সাথী বেগম (১০) ও মাসুদ মিয়ার মেয়ে মৌসুমী আক্তার (৮) কলা গাছের ভেলায় করে বাড়ির পাশে বানের পানি দেখতে যায়। একপর্যায়ে তিনজনই পানিতে পড়ে যায়। পরে স্বজনরা তাদেরকে উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলেই স্বজনী খাতুন ও সাথী বেগম মারা যান। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মৌসুমী আক্তারকে বকশীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে শেরপুর সদর হাসপাতালে রেফার করেন।

এছাড়া রবিবার দুপুরে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে বসতঘরের পিছনে গেলে পা পিছলে পানিতে পড়ে যায় বৃদ্ধ আবদুল শেখ (৭০)। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এছাড়া ঘুঘরাকান্দি এলাকায় পানিতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হন পৌর শহরের সীমারপাড়া গ্রামের শাজাহান মিয়ার ছেলে সুজন (২২)। নিখোঁজের তিনদিন পর রবিবার সকালে মেরুরচর ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রাম থেকে সুজনের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

পানিতে পড়ে সাধুরপাড়া ইউনিয়নের কুতুবেরচর এলাকার ইয়াছিন মিয়ার শিশু সন্তান স্বাধীন (৪) মারা গেছে। অপরদিকে শনিবার রাতে সাপের কামড়ে রাজা-বাদশা (৫৫) একজন মারা যান। তিনি ঝালরচর গ্রামের চান্দু শেখের ছেলে।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মাহবুব আলম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।