গফরগাঁওয়ে বখাটের অত্যাচারে কলেজে যাওয়া বন্ধ মার্জিয়ার

গফরগাঁও, (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :

ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার বিল মাখল গ্রামে স্থানীয় বখাটে এক যুবকের অত্যাচারে কলেজে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে মার্জিয়া আক্তার নামের এক কিশোরীর।

এ ঘটনায় মার্জিয়ার মা তাছলিমা বাদি হয়ে পাগলা থানায় বিল মাখল গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে মিজান ও তার সহযোগী শহিদ মিয়ার ছেলে রাসেলদের নামে মামলা দায়ের করলেও এখনও আসামীদের ধরতে পারেনি পুলিশ।

ভোক্তভোগী মার্জিয়া আক্তার স্থানীয় মুজিবর রহমানের মেয়ে, সে স্থানীয় গয়েশপুর কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

ভোক্তভোগী কিশোরীর স্বজনদের ভাষ্য, মার্জিয়া অপ্রাপ্তবয়স্ক, উচ্চশিক্ষা লাভ করে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার স্বপ্ন তার। কিন্তু এলাকার বখাটে বাচ্চু মিয়ার ছেলে মিজান ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে বিবাহের প্রস্তাব আসে। কিন্তু মার্জিয়ার অভিলাশের কথা বিবেচনা করে তার পরিবার বিয়ের প্রস্তাব নাকচ করে দেয়। এতে মিজান নানা ভাবে অত্যাচার নির্যাতন শুরু করে। এদিকে মিজানের অত্যাচারে মার্জিয়া গত কয়েক মাস আগে আতœহত্যার চেষ্টা চালান। গত ২৫ আগষ্ট সোমবার মার্জিয়া বাড়ির পাশে গরু আনতে গেলে অভিযুক্ত মিজান, রাসেল ও তার সহযোগীরা তাকে জোড়পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। পরে মার্জিয়ার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করেন। এর পর থেকেই বখাটেরা সড়কে পাহাড়ায় রয়েছে, মার্জিয়া বাড়ি থেকে বের হলেই তুলে নেয়ার ঘোষনা দিয়েছে বখাটেরা। বখাটেদের হুমকীতে মার্জিয়া এখন প্রায় গৃহবন্দি।

এ বিষয়ে পাগলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহীনুজ্জামান খান জানান, এ ঘটনায় থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।