শুক্রবার, এপ্রিল ২৩
Shadow

বেগম জিয়া রোহিঙ্গা শিশুকে নিয়ে তামাশা করেছেন: যুবলীগ চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক :

যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেছেন,উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের ত্রান দেওয়ার নামে নির্বাচনী শো-ডাউন করেছেন, বেগম খালেদা জিয়া রোহিঙ্গা শিশুকে নিয়ে তামাশা করেছেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কর্মকান্ড দেখে গার্ডিয়ান পত্রিকা মাদার অব হিউম্যানিটি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

শনিবার বিকাল তিনটায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পূর্ব গেটে যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে যুবলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিন শাখার যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, যুবলীগ প্রতিষ্ঠার পর থেকে নানা চড়াই-উৎরাই, ঘাত-প্রতিঘাত অত্যাচার-নির্যাতন, জেল-জুলুম কোন কিছুই এ সংগঠনের অগ্রযাত্রা ব্যহত করতে পারেনি। যুবলীগ একটি দিনের জন্যও রাজপথ ছেড়ে যায়নি এবং আদর্শচ্যুত হয়নি । আওয়ামী যুবলীগ আজ দেশের প্রগতিশীল যুব সমাজের আস্থার ঠিকানা। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার সবচেয়ে বিশ্বস্ত, নির্ভরযোগ্য, স্নেহধন্য আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগ। আওয়ামী যুবলীগের লক্ষ্য রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিশ্ব শান্তির দর্শন ‘জনগণের ক্ষমতায়ন’ সুদৃঢ করা, সুসংহত করা এবং সর্বস্তরের জনগণ ও প্রগতিশীল যুব সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করে এ দর্শনে উদ্বুদ্ধ করা।
যুবলীগ নেতাকর্মিদের উদ্দেশে তিনি বলেন, যুবলীগ করতে হলে ভাল-মন্দ বুঝে করতে হবে, আগামীতে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে রাষ্ট্রক্ষমতায় আনতে জনমত সৃষ্টি করতে হবে। আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নির্দেশে নির্বাচনী কর্মকান্ড এখনই শুরু করতে হবে। বাংলাদেশের রাজনীতির সত্য-মিথ্যার প্রভেদটিও জনগনের সামনে তুলে ধরতে হবে। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিশ্বশান্তির দর্শন “জনগণের ক্ষমতায়ন” ও উন্নয়ন কর্মকান্ড জনগনের সম্মুখে তুলে ধরতে হবে। নেতা হওয়ার দরকার নাই, দরকার রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কর্মি। নোভেল লরিয়েট দরকার নাই, দরকার রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার মত নোভেল ওর্য়াকার।
যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিন শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইনুদ্দিন রানার সভাপতিত্বে ও উত্তর শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন এর পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারুনুর রশীদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, মাহবুবুর রহমান হিরন, আব্দুল সাত্তার মাসুদ, আতাউর রহমান, শাহজাহান ভূইয়া মাখন, অধ্যাপক এবিএম আমজাদ হোসেন, নিখিল গুহ, আনোয়ারুল ইসলাম, জাকির হোসেন খান, শেখ আতিয়ার রহমান দিপু, যুগ্ম সম্পাদক মহিউদ্দিন আহম্মেদ মহি, মঞ্জুর আলম শাহিন, সুব্রত পাল, ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল, দক্ষিন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিন, আসাদুল হক আসাদ, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য কাজী আনিসুর রহমান, মিজানুল ইসলাম মিজু, ইকবাল মাহমুদ বাবলু, শ্যামল কুমার রায় প্রমূখ।
এরআগে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৬ টায় যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ৮টায় ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। সকাল ৯টায় বনানী কবরস্থানে যুবলীগ প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ শেখ ফজলুল হক মনিসহ  ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নিহত সকল শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া মোনাজাত করা হয়। এছাড়া বিকাল তিনটায়  সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পূর্ব গেটে সমাবেশ শেষে ধানমন্ডি ৩২ (বঙ্গবন্ধু ভবন) পর্যন্ত এক বর্নাঢ্য রালী অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.