বুধবার, এপ্রিল ১৪
Shadow

সাফে ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশের যুবারা

প্রাইম খেলাধুলা  :

অবিশ্বাস্য, অকল্পনীয়, অসাধারণ! প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে পিছিয়ে থাকা দল ম্যাচ শেষে ৪-৩ গোলের ব্যবধানে জয়ী। সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপের উদ্বোধনী ম্যাচে এমন অবিশ্বাস্য কাণ্ড, কল্পনাতীত কাজটিই করেছেন বাংলার যুবারা। ভারতের মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ের নায়ক জাফর, রহমত, সুফিল, বাদশারা। ম্যাচ শেষে ভুটানের চিংলামিথাং স্টেডিয়াম যেন একখণ্ড বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে রূপ নেয়। আপন আলয়ে ঘরের সমর্থকদের সামনে যেভাবে উচ্ছ্বাস-উল্লাসে মাতে, ঠিক তেমনি জয়ের পর খেলোয়াড়রা পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে আনন্দে-উল্লাসে মেতে ওঠেন।

এমন জয় বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসে দ্বিতীয়টি খুঁজে পাওয়া যাবে না। শুধু বয়সভিত্তিক সাফ টুর্নামেন্ট কিংবা এএফসি আসরই নয়, জাতীয় দলেরও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এমন রেকর্ড নেই। রেকর্ড গেঁটে বিশ্ব ফুটবলে হয় তো এমন ম্যাচের ঘটনা খুঁজে পাওয়া যাবে, তবে সেই সংখ্যাও খুব বেশি হওয়ার নয়! ম্যাচের প্রথমার্ধে ৩ গোল হজম করে বসে বাংলাদেশ। এমন ম্যাচের চিত্র সহজে অনুমেয়। অবধারিত হার। হজম করতে হতে পারে আরো গোল। বিপরীতে সর্বোচ্চ ভালো খেলতে পারলে হতে পারে কষ্টার্জিত ড্র! প্রতিপক্ষ যখন ভারত-বাংলাদেশ, তখন এমন পূর্বানুমান ভুল হওয়ার নয়। কিন্তু বাংলার যুবারা সব ধরনের অনুমানকে ভুল প্রমাণ করে দলের জন্য ঐতিহাসিক এক জয়ই ছিনিয়ে এনেছেন।

প্রথমার্ধে অগোছালো বাংলাদেশ দ্বিতীয়ার্ধে যেন নতুনরূপে আবির্ভূত হয়। ৫৩ মিনিটে দলকে শুরুর অগ্রগামিতা এনে দেন গত মৌসুম আরামবাগ ক্রীড়া সংঘে অসাধারণ পারফর্ম করা জাফর ইকবাল। এই মৌসুম অবশ্য চট্টগ্রাম আবাহনীর ডেরায় তাঁবু গেড়েছেন তিনি। ৩-১ ব্যবধান মাত্র কয়েক মিনিটের ব্যবধানে ৩-২-এ নামিয়ে আনেন সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের রহমত মিয়া। এরপর আরামবাগের আবু সুফিয়ান সুফিল দলের হয়ে তৃতীয় গোলটি করে ৩-৩ গোলের সমতা ফিরে আসে। চতুর্থ ও জয়সূচক গোলটি আসে শুরুতে লাল-সবুজ দলকে গোলের আনন্দে ভাসানো সেই জাফর ইকবাল।

ছয় দল নিয়ে এবারের সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপ আসরটি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু টুর্নামেন্ট শুরুর কয়েকদিন আগে শ্রীলঙ্কা নাম প্রত্যাহার করে নিলে গ্রুপের বদলে রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতি টুর্নামেন্ট শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় হয়। যার বাস্তবায়ন বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ দিয়ে হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.