রবিবার, জুলাই ৫
Shadow

এটিএম বুথ এখন গ্রামেও

প্রাইম ডেস্ক :
গ্রামের মানুষও এখন এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলবেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতেও চালু হচ্ছে অটোমেটেড টেলার মেশিন (এটিএম) থেকে টাকা উত্তোলন-জমা ও পয়েন্ট অব সেলস (পিওএস) মেশিনে সেবামূল্য পরিশোধের সুবিধা। হোয়াইট লেবেল এটিএম অ্যান্ড মার্চেন্ট অ্যাকুয়ারিং সার্ভিসের (ডব্লিউএলএএমএ) মাধ্যমে বেসরকারি উদ্যোগে এ সেবা দেয়া হবে।
বাংলাদেশ ব্যাংক অনুমোদিত ডব্লিউএলএএমএ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ও পরিশোধ সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকরা এ সুবিধা পাবেন।
সোমবার (১ জুন) এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেম বিভাগ। ডব্লিউএলএএমএ হচ্ছে একটি এটিএম ও পয়েন্ট অব সেলস (পিওএস) সেবাদান প্রক্রিয়া। বেসরকারি উদ্যোক্তারা বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে লাইসেন্স নিয়ে এ সেবা দিতে পারবে।
ফলে দেশের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের যেসব জায়গায় কোনো ব্যাংকের এটিএম বুথ ও পয়েন্ট অব সেলস মেশিনে লেনদেন করা যেতো না, সেসব জায়গা থেকে ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাংলাদেশের আওতায় এখন থেকে লেনদেন করা ও টাকা তোলা যাবে।
প্রজ্ঞাপণে বলা হয়, এ সেবা নেয়ার জন্য গ্রাহকের কাছ থেকে সরাসরি কোনো চার্জ আদায় করা হবে না। গ্রাহক এ সেবার মাধ্যমে টাকা উত্তোলন, জমাদান, ব্যালেন্স অনুসন্ধান, ফান্ড ট্রান্সফার এবং বিল পেমেন্ট করতে পারবেন।
কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে এ সেবা দেয়ার লাইসেন্স নেয়ার জন্য ৪৫ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধন এবং এটিএম সেবা দেয়ার জন্য অতিরিক্ত ১০ কোটি টাকা ব্যাংক গ্যারান্টি দিতে হবে। তবে এটিএম ও মার্চেন্ট অ্যাকুইজিশন সেবা দিতে চাইলে ১০ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধনের সঙ্গে আরও ১০ কোটি টাকা ব্যাংক গ্যারান্টি দিতে হবে।