রবিবার, জুলাই ৫
Shadow

শ্রীপুরে তিন সন্তানসহ মাকে ধর্ষণের পর হত্যা, এসএসসি জিপিএ ৫ পেয়েছেন সেই নূরা

আ: আজিজ :
সাবরিনা সুলতানা নূরার স্বপ্ন ছিল একজন চিকিৎসক হয়ে দেশ সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করবে। বাবা-মা ও শিক্ষকদের সহায়তায় সে লক্ষ্যেই এগিয়ে যাচ্ছিলো নুরা। পড়ালেখার প্রতিটি ধাপেই সফলতার স্বাক্ষর রেখেছিলেন নূরা। সবশেষ সফলতার আলো ছড়িয়েছেন চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে। ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী নূরা জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন। ফলাফল প্রকাশের পর নূরার বন্ধু ও সহপাঠীরা আনন্দ উল্লাস করলেও নূরার স্বজনদের মধ্যে নেই এর ছিটেফোঁটাও। কারণ এই উৎসবের মধ্যমনি নূরা যে আর নেই। তাই এ ফলাফল এখন বাড়িয়েছে শুধুই আক্ষেপ।

গত ২২ এপ্রিল রাতে গাজীপুরের শ্রীপুরের আবদার গ্রামে নিজ বাড়ীতে মা, বোন ও ভাইয়ের সাথে নির্মম, নারকীয় হত্যার শিকার হন সাবরিনা সুলতানা নূরা। এ ঘটনায় একটি পরিবারের সাথে নূরার স্বপ্নও ইতি টানে।

পরিবারটির বেঁচে থাকা একমাত্র সদস্য নূরার বাবা প্রবাসী রেজোয়ান কাজলের জানান, নূরা ছোটকাল থেকেই মেধাবী। সে প্রাথমিক সমাপনী ও জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছিল। স্থানীয় এইচএকে একাডেমী নামের একটি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী হিসেবে এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে অংশ নিয়েছিল। পরীক্ষার পরই নূরা বলেছিল ভালো ফলাফল করবে। সে তার কথা রাখলেও আমাদের সমাজ বা আমরা তার নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছি। যারা তার মেয়ের স্বপ্নের সমাধি রচনা করে তার পরিবারটি শেষ করেছেন তাদের বিচার দেখার অপেক্ষায় দিন কাটছে এখন তার।

তিনি আরো জানান, নূরা তার স্বপ্নের পথে হেঁটে যে পরিশ্রম করতো এই ফলাফল তার প্রমাণ। এই ফলাফলটাও যে তার আক্ষেপ আরো বাড়িয়ে তুলছে এখন।

বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক শাহীন সুলতানা জানান, শিক্ষার্থী ছাড়া ফলাফলের কি বা মূল্যই থাকে। এই বিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থী ছিল নূরা। তার এমন ফলাফল আমাদের কাছে প্রত্যাশিত ছিল। তার স্বপ্ন ছিল চিকিৎসক হবে। কিন্তু একটি ঘটনার মধ্য দিয়ে সবই তো এখন অতীত। ফলাফলের দিন সকলের মতো প্রিয় শিক্ষার্থীর এই ফলাফলটাও বাড়িয়েছে আক্ষেপ ও বিষাদ।