শুক্রবার, মে ৭
Shadow

৯ উইকেটে জিতলো কুমিল্লা

প্রাইম খেলাধুলা  :

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সামনে পাত্তাই পেলো না খুলনার বোলাররা। ১১২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৬.১ ওভার হাতে রেখেই জিতে গেল কুমিল্লা। ১৩.৫ ওভারে লক্ষ্যে পৌছে তারা লিটন দাসকে হারিয়ে। তামিম ইকবাল ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন। লিটন দাস আউট হন ২০ বলের ২১ রান করে। ইমরুল কায়েস অপরাজিত থাকেন ২১ বলে ২২ রান করে।

১০ খেলায় ১৩ পয়েন্ট নিয়ে খুলনা সবার ওপরেই থাকলো। তবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৮ খেলায় ১২ পয়েন্ট নিয়ে উঠে এলো দুই নম্বরে।
কুমিল্লার টার্গেট ১১২
গতকাল ২১৩ রান করা খুলনা টাইটান্স আজ অলআউট হয়ে গেলো ১১১ রানে। ৭৯ রানে আট উইকেট হারানোর পর তারা ১০০ করতে পারবে কিনা তা নিয়ে সংশয় ছিল। পরে কাইল অ্যাবোট ও শফিউল ইসলামের ব্যাটিংয়ে তারা তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছে। দুজনই করেন ১৬ করে। সর্বোচ্চ ২৪ রান করেন আরিফুল হক। কুমিল্লার পক্ষে শোয়েব মালিক ১৪ রানে ও আল আমিন হোসেন ২০ রানে তিনটি করে উইকেট নিয়ে খুলনার ধ্বস নামান।
শোয়েব মালিকেই দিশাহারা খুলনা
টসে জিতে এবার বিপিএলে বেশির ভাগ দল আগে ফিল্ডিং নিচ্ছে। কিন্তু আগের দিন টসে হেরে আসর সেরা স্কোর গড়ে আজ কুমিল্লার বিপক্ষে টসে জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন খুলনা অধিনায়ক। কিন্তু শুরুতেই চরম বিপর্যয়ে পড়েছে তারা। শোয়েব মালিকের ঘূর্ণিতে বেসামাল হয়ে পড়েছে খুলনার ব্যাটসম্যানরা। ৯ ওভারে ৫৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়েছে তারা। এর মধ্যে তিন উইকেট নেন পাকিস্তানের শোয়েব। ৩ ওভারে ১৪ রান দেন তিনি। সোমবারের দুই সফল ব্যাটসম্যান আফিফ ও নিকোলাস পুরান যখাক্রমে ৮ ও শূণ্য রানে আউট হন তার বলে। এর মধ্যে মাহমুদুল্লাহ সর্বোচ্চ ১৪ রান করেন।
রাইলি রুসো ও নাজমুল হাসান শান্ত ওপেনিংয়ে নেমে বেশিদূর যেতে পারলেন না। প্রথম ওভারেই রুসোর বলে কোন রান না করেই বিদায় নেন মেহেদি হাসান মিরাজের বলে। পরের ওভারে শোয়েব মালিকের শিকারে পরিণত হন নাজমুল। তৃতীয় উইকেটে আফিফ হোসেন ও মাহমুদুল্লাহ দলের হাল ধরেছেন। ৪ ওভারে সংগ্রহ ২ উইকেটে ২৮।

Leave a Reply

Your email address will not be published.