শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫
Shadow

কীর্তিমান দশ নারী পাচ্ছেন অনন্যা সম্মাননা

প্রাইম ডেস্ক :

পুরুষ শাসিত সমাজে আজও নারীকে পথ চলতে হয় অজস্র প্রতিকূলতা পেরিয়ে। নানা চড়াই-উৎরাই ডিঙ্গিয়ে পৌঁছুতে হয় কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে। শেষ পর্যন্ত আপন শ্রম, মেধা আর অদম্য সাহসে ভর করে জীবনের জয়গান গাইতে পারেন অনেকেই। পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের কাছে হয়ে ওঠেন দৃষ্টান্ত। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা সেসব কীর্তিমান নারীদের সম্মান জানিয়ে আসছে পাক্ষিক অনন্যা। সেই সুবাদে প্রতিবছরের মতো এবারও প্রদান করা হচ্ছে ২০১৯ সালের অনন্যা শীর্ষদশ সম্মাননা। চিত্রকলা, সঙ্গীত, সমাজসেবা, সংগঠকসহ দশটি শাখায় অবদান রাখা দশ কৃতী নারী পাচ্ছেন এই সম্মাননা। ইতোমধ্যে তাদের নির্বাচিতদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। আজ শুক্রবার এই সম্মাননা প্রদান করা হবে। মহামারীর কারণে বিগত বছরের মতো মিলনায়তনভিত্তিক আনুষ্ঠানিকতার পরিবর্তে ভার্চুয়াল মাধ্যমে প্রদান করা হবে এই সম্মাননা। রাত আটটায় অনন্যার ফেসবুক পেজে সরাসরি সম্প্রচারিত হবে এ অনুষ্ঠান।

বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অনন্যা শীর্ষদশ-২০১৯ সম্মাননার জন্য নির্বাচিত আলোচিত ও আলোকিত নারীদের নাম ঘোষণা এবং অনুষ্ঠান সম্পর্কিত তথ্য জানানো হয়েছে। চিত্রকলা শাখায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ অনন্যা শীর্ষদশ সম্মাননা পাচ্ছেন খ্যাতিমান চিত্রশিল্পী ফরিদা জামান। উদ্যোক্তা হিসেবে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা পাচ্ছেন নাসিমা আক্তার দিশা। সমাজসেবা শাখায় মরণোত্তর সম্মাননা পাচ্ছেন শ্রীমতি সাহা। অনন্য দৃষ্টান্ত বিভাগে সম্মাননা পাবেন হাজেরা বেগম। সাংবাদিকতায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা দেয়া হবে সুমনা শারমিনকে। অনুপ্রেরণা শাখায় সম্মাননা পাবেন ফাল্গুনী সাহা। সংগঠক হিসেবে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা পাচ্ছেন ইশরাত খান মজলিশ। ক্রীড়া ক্ষেত্রে অবদানের জন্য সম্মাননা পাচ্ছেন ইতি খাতুন। সঙ্গীত বিভাগে সম্মাননা প্রদান করা হবে নারী ব্যান্ডদল এফ মাইনরকে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ফেসবুক লাইভে যুক্ত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন পাক্ষিক অনন্যা সম্পাদক তাসমিমা হোসেন। অনুষ্ঠানে প্রদর্শিত হবে সম্মাননাপ্রাপ্ত প্রতিটি শাখার কীর্তিমান নারীদের নিয়ে নির্মিত তথ্যচিত্র। সেসব তথ্যচিত্রে উঠে আসবে তাদের সাফল্যের নেপথ্যের কথা।

প্রসঙ্গত বিগত প্রায় তিনদশক ধরে পাক্ষিক অনন্যা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফল ও প্রতিষ্ঠিত নারীদের স্বীকৃতি দিয়ে আসছে। এর মাধ্যমে নারীর অগ্রযাত্রার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি। কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য, আর্থনীতি, অভিনয়, সঙ্গীত, খেলাধুলা, শিক্ষা, চিকিৎসা, মুক্তিযুদ্ধ, সমাজকল্যাণ তথা আইন, মানবাধিকার, ব্যবসায় উদ্যোগ, রাজনীতি, সাংবাদিকতা প্রভৃতি অঙ্গনে যেসব নারী উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে চলেছেন তাদের কর্ম সাধনার স্বীকৃতিস্বরূপ এই শীর্ষদশ সম্মাননা প্রদান করা হচ্ছে।