সোমবার, মার্চ ৮
Shadow

একই ফ্লাইটে রংপুরে এরশাদ-ফখরুল

প্রাইম ডেস্ক :

একই ফ্লাইটে সোমবার রংপুরে এলেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এইচএম এরশাদ এবং বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ঢাকা-সৈয়দপুর যাত্রাপথে তাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা-বার্তা ও কুশল বিনিময় হয়েছে বলে উভয় দল এবং বিমানযাত্রী সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে এরশাদ ও মির্জা ফখরুলের একই ফ্লাইটে রংপুরে আসা, কুশল বিনিময় ও কথোপকথন নিয়ে রংপুরের রাজনৈতিক মহলে নানা কৌতুহলের সৃষ্টি হয়েছে। তারা মনে করছেন, এই ঘটনার মধ্যদিয়ে দু’দলের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে উঠতে পারে। আগামীতে জাপা ও বিএনপির মধ্যে ঐক্য হলে তা নিয়ে আশ্চর্য হওয়ার কিছু থাকবে না।

এদিকে রংপুরে আসার পর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে তার ও দলের বিরুদ্ধে বিএনপি নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্য উল্লেখ করে বিভিন্ন বিষয় জানতে চাইলে তিনি কোন উত্তর দেননি। এ কারণেই বিএনপি ও জাপার মধ্যে বরফ গলার আলামত লক্ষ্যে করা যাচ্ছে বলে অনেকেই মনে করছেন।

এর আগে ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, রাজনীতিতে শেষ কথা বলে কিছু নেই। তাই জাপার সঙ্গেও তারা রাজনৈতিক ঐক্য গড়ার জন্য কথা বলতে পারেন।

জানা যায়, রংপুর সিটি কর্পোরেশন (রসিক) নির্বাচন উপলক্ষে ভোট দিতে এবং নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে আসেন জাপার চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ এবং বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে সৈয়দপুরগামী ইউএস-বাংলার ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে ছাড়ার কথা থাকলেও ঘন কুয়াশার কারণে দেরি হয়। এ কারণে দীর্ঘসময় ধরে তারা দু’জনেই বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে অপেক্ষারত ছিলেন।

বেলা ১১টায় প্রথমে বিমানে উঠে আসন গ্রহণ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কিছুক্ষণ পর এইচএম এরশাদ একই বিমানে উঠলে মির্জা ফখরুল দাঁড়িয়ে তাকে সালাম দেন। সালামের জবাব দিয়ে এরশাদ হাত বাড়িয়ে করমর্দন করেন এবং নিজের আসনে বসে পড়েন। এরশাদের ঠিক পেছনের আসনে ছিলেন মির্জা ফখরুল। এ সময় তাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা-বার্তা ও কুশল বিনিময় হয়।

এরশাদ ও ফখরুলের কথা-বার্তা এবং কুশল বিনিময়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের প্রেসউইং সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, কাছাকাছি সিট হওয়াতে মির্জা ফখরুল এরশাদের কাছে যান। তিনি সালাম দেন। কেমন আছেন জানতে চান। এরশাদও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। তাদের মধ্যে দীর্ঘ কোনও কথা হয়নি।

এরশাদের ব্যক্তিগত সহকারী মেজর খালিদ বলেন, এরশাদ স্যারের সঙ্গে তার ছেলে এরিক এরশাদ ও কাজের লোক এসেছেন। সকালে আমি বিমাবন্দরে সিঅফ করে এসেছি স্যারকে।

রসিক নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাতে ফখরুল রংপুর গেলেও দৃশ্যত এরশাদ গেছেন ব্যক্তিগত কাজে। যদিও এরই মধ্যে জাপার সিনিয়র নেতারা রংপুরেই অবস্থান করছেন বলে জানান দলটির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। একই ফ্লাইটে কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম এবং মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত সৈয়দপুরে আসেন।