মঙ্গলবার, মার্চ ২
Shadow

ময়মনসিংহে চলছে ৩দিন ব্যাপী ইজতেমা

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বিশ্ব ইজতেমার অংশ হিসেবে ময়মনসিংহের বাড়েরায় গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে ইজতেমা শুরু হয়েছে। জেলা প্রশাসক মো. খলিলুর রহমান জানান, জেলা ইজতেমায় প্রায় ৫ লক্ষাধিক  মুসল্লির জন্য সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমার অংশ হিসেবে এবার তাবলীগ জামায়াতের আঞ্চলিক ইজতেমা বিভাগীয় সদর জেলা ময়মনসিংহের বাড়েরায় গতকাল থেকে শুরু হয়েছে। ২১, ২২ ও ২৩  ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার, শুক্রবার ও শনিবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এটি হচ্ছে ময়মনসিংহে ৪র্থ ইজতেমা।
ময়মনসিংহে জেলা ইজতেমায় প্রায় ৫ লক্ষাধিক মুসল্লীর সমাগম হবে। মুসল্লীদের সার্বিক নিরাপত্তায় গোয়েন্দা নজরদারি, ওয়াচ টাওয়ার বসানো, ৩টি কন্ট্রোল রুম স্থাপন, সন্ত্রাস ও নাশকতাসহ নানা অপরাধ দমনে সিসি ক্যামেরা, মুসল্লীদের নির্বিঘে যাতায়াত নিশ্চিতকরণে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা হয়েছে।
ময়মনসিংহের আঞ্চলিক ইজতেমায় মুসল্লীদের সুষ্ঠু নিরাপত্তায় জেলা পুলিশ তিনস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। তন্মধ্যে সিসি ক্যামেরা ও ওয়াচ টাওয়ারের মাধ্যমে সার্বক্ষনিক পর্যক্ষেণ, সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজদারি, নিয়মিত টহল,  সুষ্ঠু ট্রাফিক ব্যবস্থা নিশ্চিত করাসহ প্রয়োজনীয় সব ধরণের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। পুলিশ সুপার আরো জানান, ইজতেমার শুরু থেকে আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্বেচ্ছাসেবকদের কয়েক শ’ কর্মী ইজতেমা এলাকায় উপস্থিত থাকবে।
প্রায় ৫০ একর জমিতে নির্মিত প্যান্ডেলের ভিতরে বসে সাড়ে তিন লাখ এবং আশপাশ সহ ৫লক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ মুসল্লী দ্বীনের বয়ান শুনতে পারবেন। ২৩ ডিসেম্বর শনিবার দুপুরে আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে তিনদিনব্যাপী ইজতেমা শেষ হবে। ইজতেমায় কাকরাইলসহ তাবলীগ জামায়াতের বিশিষ্ট মুরুব্বীগণ বয়ান রাখবেন। ইজতেমা সফল করতে মুসল্লীদের স্বেচ্ছাশ্রম নানা সহযোগিতায় যাবতীয় প্রস্ততিকাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে বলে আয়োজকরা জানান। এবার বধিরদের জন্য আলাদা জায়গা রাখা হয়েছে।
তাদের মূল প্যান্ডেলে বয়ান বদিরদের ইশারায় অনুবাদ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সারা দুনিয়ার মানুষ কিভাবে আল্লাহ ওয়ালা ও ইমান ওয়ালা হয়, জাহান্নাম থেকে রক্ষা পেয়ে যাতে জান্নাতে যেতে পারে, এই লক্ষ্য নিয়ে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মো. খলিলুর রহমান জানান, ময়মনসিংহে জেলা ইজতেমায় প্রায় ৫ লক্ষাধিক মুসল্লীর সমাগম হবে। মুসল্লীদের সার্বিক নিরাপত্তায় গোয়েন্দা নজরদারি, ওয়াচ টাওয়ার বসানো, ৩টি কন্ট্রোল রুম স্থাপন, সন্ত্রাস ও নাশকতাসহ নানা অপরাধ দমনে সিসি ক্যামেরা, মুসল্লীদের নির্বিঘেœ যাতায়াত নিশ্চিতকরণে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা, ফুলবাড়িয়া বাইপাস মোড় হতে ইজতেমা পশ্চিম প্রান্তের মাঠে পর্যন্ত মহাসড়কের দুপাশে দোকানপাট না বসানো, একটি কক্ষে মেডিকেল টীম সার্বক্ষনিক চিকিৎসা প্রদান, বিশুদ্ধ খাবার পানি নিশ্চিতকরন, প্রতিদিন মশক নিধনে ওষুধ ছিটানো ও পয়:ব্যর্জ অপসারণ, দুর্ঘটনা রোধ ব্যবস্থা গ্রহন ও উদ্ধারতৎপরতায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ও এম্ব্যুলেন্স স্ট্যান্ডবাই রাখাসসহ অন্যান্য ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহ জেলা তাবলীগ জামায়াতের সূরা সদস্য, জেলা ইজতেমা ব্যবস্থাপনা কমিটির জিম্মাদার ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি প্রকৌশল ও কারিগরি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মোশাররফ হোসেন জানান, ময়মনসিংহ শহরতলীর ফুলবাড়ীয়া বাইপাসের মোড়ের সাথে বাড়েরায় মার্কাজ মসজিদ সংলগ্ন ১০ একর এবং এর পশ্চিমে প্রায় ৪০ একর জমিতে এবার ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। ইজতেমার মূল বক্তৃতা মঞ্চ হবে পশ্চিমের প্যান্ডেলে  উজান বাড়েরায়।
প্যান্ডেল কমিটির জিম্মদান বাকৃবি প্রফেসর ড. মো. মামুনুর রশীদ জানান, ইজতেমার প্যান্ডেলের ভিতরে ১৪ খিত্তা রয়েছে, এসব খিত্তায় ময়মনসিংহ জেলার ১৩টি উপজেলা হতে আগত মুসল্লীদের জন্য নির্ধারিত স্থান রাখা হয়েছে। এতে মোট ২৫০টি মসজিদওয়ালি জামায়াত কাজ করবে। ইতোমধ্যে ইজতেমা এলাকায় বাঁশ ও তাবু দিয়ে বিশাল এলাকা জুড়ে প্যান্ডেল তৈরী করা হয়েছে।  প্রায় সাড়ে তিন লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লী দ্বীনের বয়ান শুনতে পারবেন। এছাড়া আশপাশে পর্যাপ্ত খোলা জায়গা রয়েছে। অজু ও গোসলের জন্য ইজতেমা মাঠ সংলগ্ন বাঁশের মাচা তৈরী করা হয়েছে। ইজতেমায় বিদেশী মুসল্লী, কাকরাইলের মুরুব্বী, ওলামায়ে কেরাম, বিশেষ মেহমান ও মূক-বধিরদের জন্য আলাদা স্থান রাখা হয়েছে। প্রতিদিন পাঁচ শতাধিক মুসল্লী স্বেচ্ছাশ্রমে ইজতেমা ব্যবস্থাপনায় কাজ করেছে।
র‌্যাব-১৪, ময়মনসিংহ অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. শরীফুল ইলাম জানান, র‌্যাবের পক্ষ থেকে নিয়মিত টহল, রিাজার্ভ ফোর্স, ওয়াচ টাওয়ারে পর্যবেক্ষনসহ ময়মনসিংহের আঞ্চলিক ইজতেমায় মুসল্লীদের সুষ্ঠু নিরাপত্তায় সর্বাত্মক ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। ময়মনসিংহে জেলায় ২০০৩ সালে প্রথম আঞ্চলিক ইজতেমা হয় এরপর ২০০৮ সালে দ্বিতীয়, ২০১৫ সালে তৃতীয় এবং ২০১৭ সালের ২১,২২,২৩ ডিসেম্বর ৪র্থ জেলা ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।