শনিবার, এপ্রিল ১৭
Shadow

প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকদের আন্দোলন স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক  :

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেওয়ার পর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের জুস খাইয়ে অনশন ভাঙালেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান।
আজ সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমানের মিন্টো রোডের বাসভবনে এই বৈঠক শেষে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান শিক্ষক প্রতিনিধিরা।

এরপর সোমবার সন্ধ্যায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব এবং প্রাথমিক অধিদফতরের মহাপরিচালকের উপস্থিততে আন্দোলনরত শিক্ষকদের শরবত খাওয়ানো হয়।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকরা আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। আমি তাদের আস্থার প্রতিদান দিব। তিনি বলেন, এই সরকারের মেয়াদকালীন সময়ের মধ্যে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের বেতন গ্রেডের সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।
এর আগে অনশনরত প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে মন্ত্রীর মিন্টো রোডের বাসভবনে যান শিক্ষক প্রতিনিধির সদস্যরা। সেখানে দুই ভাগ হয়ে শিক্ষক প্রতিনিধির সদস্যরা যান। প্রথম ধাপে ৬ জন, পরের ধাপে আরও ৬ জন যান। এসময় দাবি-দাওয়া নিয়ে তার সঙ্গে আলোচনা হয়। আলোচনা শেষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করে চার শর্তে আন্দোলন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে তার বাসভবনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করে চার শর্তে আন্দোলন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়। শর্তগুলো হলো: প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের ১০ গ্রেড স্থগিত, নতুনভাবে একসঙ্গে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের বেতন গ্রেড নির্ধারণ করা হবে, প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের গ্রেডের মধ্যে যে বৈষম্য ছিল তা দূরীকরণ করা হবে, প্রাথমিকের শিক্ষক প্রতিনিধি দলের একটি কমিটি দফতরে দফতরে ( প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব ও প্রাথমিক অধিদফতরের মহাপরিচালক) গিয়ে শিক্ষকদের সমস্যাগুলো নিয়ে আলাপ-আলোচনা করবেন।
উল্লেখ্য, গত ২৩ ডিসেম্বর (শনিবার) সকাল ১০টায় বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের উদ্যাগে এ অনশন কর্মসূচি চলছে। মহাজোটের অধীনে সহকারী শিক্ষকদের ১০টি সংগঠনের হাজার হাজার শিক্ষকরা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে যোগ দিয়েছেন অনশন কর্মসূচিতে।