মঙ্গলবার, এপ্রিল ২০
Shadow

দুই প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, চার পাইলট জীবিত উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক  :

কক্সবাজারের মহেশখালীতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর দুটি প্রশিক্ষণ বিমান আকাশে সংঘর্ষের পর বিধ্বস্ত হয়েছে। বিধ্বস্ত হওয়ার পর বিমান দুটিতে আগুন ধরে যায়। তবে এতে থাকা চার পাইলটকেই জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলা সদর থেকে দুই কিলোমিটার দূরে পুটিবিলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম শাম্মী বলেন, মহেশখালীতে বুধবার সন্ধ্যায় আকাশে সংঘর্ষের পর বিমানবাহিনীর দুটি প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। সন্ধ্যার দিকে ঘণ্টাখানেক ধরে রাডার থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল বিমান দুটি। এর একটির মডেল ইয়াক-৮। দুটি বিমানে দুজন করে চারজন ছিলেন, চারজনকেই উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল কালাম বলেন, বিমানটি ওই এলাকার জনৈক আব্দুস সাত্তারের বাড়ির উপরের অংশ উড়িয়ে নিয়ে পার্শ্ববর্তী ধান ক্ষেতে বিধ্বস্ত হয়। ওই সময় আঁখি (১৫) নামে এক কিশোরী আহত হয়েছে। বিমানটিতে আগুন ধরে যায়।
কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক (ডিএডি) আবদুল মালেক জানান, বিমানটি সম্ভবত চট্টগ্রাম বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করেছে। খবর পেয়ে দমকল বাহিনী ২০ মিনিটের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছে। মহেশখালী ফায়ার সার্ভিসের একটি দল আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। কক্সবাজার, চকরিয়া থেকে আরও দুটি উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলের দিকে যাচ্ছে।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরাজুল হক টুটুল জানান, বিধ্বস্ত হওয়ার পর একটি বিমান মহেশখালীর পালপাড়ায় এবং অন্যটি কম্পনিয়া পাহাড়ি এলাকায় পড়েছে। বিধ্বস্ত হওয়ার পর একটি বিমানে আগুন ধরে যায়।
কক্সবাজার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক সাধন কুমার মোহন্ত জানিয়েছেন, মহেশখালীর পুটিবিলায় বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণ বিধ্বস্ত হওয়ার খবর তিনিও পেয়েছেন। এটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করেছে বলে প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে।
ঘটনাস্থল থেকে সাহাব উদ্দিন নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, একটি বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার আগে এর একটি অংশ ঘটনাস্থল থেকে এক কিলোমিটার দূরে লম্বাঘোনা বাজারের কাছে খসে পড়ে।