শুক্রবার, এপ্রিল ২৩
Shadow

সিলেটে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী, উদ্বোধন ৩৮ প্রকল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক  :

সিলেটে জনসভায় যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। দুই বছর আগে ২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর সিলেট সেনানিবাসে অনুষ্ঠানে যোগ দিলেও জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিলের কারণে জনসভায় অংশ নিতে পারেননি তিনি।
সিলেট সফরে আগামীকাল মঙ্গলবার ৩৮ টি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। তবে সব ছাপিয়ে আলোচনায় রয়েছে নির্বাচন প্রসঙ্গ। শেখ হাসিনার এ সফরের মধ্য দিয়েই আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হচ্ছে।

সিলেট আলিয়া মাদ্রসা মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় নির্বাচন নিয়ে দিক নির্দেশনাও আসবে বলে আশা করছেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। ইতোমধ্যে আগামী নির্বাচনগুলোতে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যানার-বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে নগরী। চলছে মিছিল সমাবেশ আর জনসভায় নিজ নিজ সমর্থকদের নিয়ে শোডাউনের প্রস্তুতি। নির্বাচনী ডামাডোলে আড়ালে পড়ে গেছে উন্নয়ন প্রকল্পের প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেব।
সফরসুচি অনুযায়ি মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হজরত শাহজালাল (র:), হজরত শাহপরান (র:) ও হজরত গাজী বুরহান উদ্দিন (র:) এর মাজার জিয়ারত করবেন। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত সিলেট সার্কিট হাউজে নামাজ ও মধ্যাহ্ন বিরতি শেষে দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের জনসভাস্থলে উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। বিকেল ৩টায় একই মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রীর এবারের সফরসূচিতে উদ্বোধনী তালিকায় রয়েছে:
হযরত গাজী বোরহান উদ্দিন (রহ.) এর মাজার উন্নয়ন, মহিলা ইবাদতখানা নির্মাণ, মাজারের সৌন্দর্য বর্ধন এবং মাজারের যাতায়াতের প্রধান রাস্তা ২ কিলোমিটার প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন, সিলেট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬তলা বিশিষ্ট নতুন একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন, পিরোজপুরে সার পরীক্ষাগার ও গবেষণাগার ভবন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের জেলা অফিস, সিলেট বিভাগীয় ও জেলা এনএসআই কার্যালয় ভবন, সিলেট মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, জকিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ১২তলা ভিত বিশিষ্ট ৫তলা ভবন, নগরীর বাবুছড়ার আরসিসি ইউ টাইপ ড্রেন নির্মাণ কাজ, জালালাবাদ রাস্তা সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন কাজ, সিলেট- সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়ক উন্নয়ন, মৌলভীবাজার-রাজনগর-ফেঞ্চুগঞ্জ- সিলেট সড়ক, রশিদপুর- বিশ্বনাথ-লামাকাজী সড়কের কাজ, সিলেট- গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগঞ্জ সড়ক, দরবস্ত-কানাইঘাট-শাহবাগ সড়কের মজবুতিকরণসহ ওভারলে এর কাজ, ঢাকা(কাঁচপুর)- ভৈরব-জগদীশপুর- শায়েস্তাগঞ্জ-সিলেট-তামাবিল-জাফলং সড়কের (সিলেট-শেরপুর অংশ) মজবুতিকরণসহ ওভারলে এর কাজ, শেরপুর টোল প্লাজার উন্নয়ন কাজ, জকিগঞ্জ উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, কানাইঘাট সড়ক ও তিনতলা বিশিষ্ট প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সেন্টার ভবন।
ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন তালিকায় রয়েছে :
হজরত শাহজালাল (র:) মহিলা ইবাদতখানা ও অন্যান্য উন্নয়ন কার্যক্রম, শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বেগম ফজিলাতুন্নেসা হল নির্মাণ, গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদ ভবন ও হলরুম নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্র হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্রী হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেটে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেলের অভ্যন্তরে নার্সিং হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেট পুলিশ লাইনে এসএমপির ব্যারাক নির্মাণ, সিলেট পুলিশ লাইনে অস্ত্রাগার নির্মাণ, এসএমপির কোতোয়ালী মডেল থানার কম্পাউন্ডে ডরমেটোরি ভবন নির্মাণ, তামাবিল ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট ভবন নির্মাণ, সিলেটের লালাবাজারে রেঞ্জ রিজার্ভ পুলিশ লাইনস নির্মাণ, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য হোস্টেল নির্মাণ ও সম্প্রসারণ, বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নতকরণ, বিভাগীয় পরিচালক (পরিবার পরিকল্পনা) ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা সিলেটের অফিস ভবন নির্মাণ, সিলেট-গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগন্জ মহাসড়কের ৬৫ কিলোমিটার উন্নয়ন, গোলাপগঞ্জ-ঢাকাদক্ষিণ-ভাদেশ্বর মহাসড়ক ও চারখাই-শেওলা-বিয়ানীবাজার-বাড়ইগ্রাম মহাসড়কের ৯.৬০ কিলোমিটার উন্নয়ন,  সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল ভবনের ৪র্থতলা হতে ১০তলা উর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ।
আলোচনায় নির্বাচন :
২০১৮ সালকে বলা হচ্ছে নির্বাচনী বছর। এ বছরের শেষ দিকে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। আর বছরের প্রথমার্ধেই সিলেটসহ ছয়টি সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচন আয়োজনের কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।
সিলেটে দলীয় প্রধানের সিলেট সফরকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে নির্বাচনী আমেজ। সিটি ও জাতীয় নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরাও প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে তৎপর। শহরজুড়ে তোরণ, বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন টানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নজরকাড়ার চেষ্টা করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। সিটি মেয়র আর বিভিন্ন আসনের সাংসদ পদপ্রার্থীদের ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে নগরী। চলছে জনসভায় ব্যাপক শোডাউনেরও প্রস্তুতি। কোন্দল আর বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে আগামী নির্বাচনে অংশ নেওয়ার প্রস্তুতি হিসেবেও এ জনসভাকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখছেন সিলেটের শীর্ষ আওয়ামী লীগ নেতারা।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহউদ্দিন সিরাজ বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে জয়লাভের জন্যে এই জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দেবেন। এই জনসভার মাধ্যমেই নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’
তবে সম্ভাব্য প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন চেয়ে নগরজুড়ে ব্যানার ফেস্টুন টানালেও আলীয়া মাদ্রাসার জনসভা থেকে প্রার্থীর ব্যাপারে কোনো ঘোষণা আসবে না বলে জানিয়েছেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ।
তিনি বলেন, ‘জনসভা থেকে প্রার্থীর ব্যাপারে কোনো ঘোষণা আসবে না। এটা নির্বাচনী বোর্ড নির্ধারণ করবে। জনসভায় প্রধানমন্ত্রী নৌকার পক্ষে ভোট চাইবেন। প্রার্থী যে কেউ হতে পারেন।