শুক্রবার, জানুয়ারি ২২
Shadow

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া অনুমোদন বাকশালী চেতনা : বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক :

মন্ত্রিসভায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর খসড়া অনুমোদন বাকশালী চেতনা বলে বলে মন্তব্য করেছে বিএনপি।
আজ মঙ্গলবার পৃথক অনুষ্ঠানে দলটির নেতারা বলেন, নতুন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংসদে পাস করা থেকে বিরত থাকার জোর দাবি জানচ্ছি।

জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক সাংস্কৃতিক জোটের এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া আইসিটি আইনের ৫৭ ধারার চেয়েও ভয়ংকর, কেননা যে যে কাজের কারণে ৫৭ ধারায় অভিযুক্ত করা যেত, সেসব কাজকে এই আইনে সম্প্রসারিত করা হয়েছে। এটি বাকশালের ধ্যান-ধারণায় সংবাদপত্র এবং মুক্তমনের ব্যক্তিদের মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে খর্ব করার জন্য করা হয়েছে। মন্ত্রিসভায় এই আইনের খসড়া অনুমোদনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
এদিকে, নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, আইসিটি অ্যাক্টের ৫৭ ধারা বিলুপ্ত করা হলেও প্রস্তাবিত আইনের ৩২ ধারা হয়রানি মূলক। তাদের মতে, এ ধারার আওতায় গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে নতুন করে নিপীড়ন ও হয়রানির শিকার হতে পারেন। এ আইনে বাকস্বাধীনতাকে অপরাধে পরিণত করা হয়েছে। গণতন্ত্রকামিরাই ক্রিমিনাল হিসেবে অভিহিত হবে। ফিরে যাওয়া হবে মধ্যযুগের অন্ধকারে।
রিজভী আরও বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন একটি কালো আইন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। এটি পাস হলে মানুষের বাক স্বাধীনতা,গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বলেও কিছুই থাকবে না। সরকারের দুর্নীতি যাতে প্রকাশ না পায় বা কেউ প্রকাশ করতে না পারে এ জন্য এই আইন করা হয়েছে। ৫৭ ধারার মতো এ আইনেও সাংবাদিকরা হয়রানির শিকার হবেন।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনী আইন সংস্কারের কাজ নাকি প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছে নির্বাচন কমিশন উল্লেখ করে বিএনপির সিনিয়র ‍যুগ্ম মহাসচিব বলেন, সশস্ত্র বাহিনীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সজ্ঞায় না রাখা, বিতর্কিত ইভিএম, ডিভিএম ছাড়া আরও কিছু বিতর্কিত বিষয় আরপিও-তে রাখা হচ্ছে। এসব অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার পরিপন্থী। উল্লিখিত আইন প্রণয়নের উদ্যোগ থেকে ইসিকে সরে আসতে জোরালো আহবান জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা এজেডএম জাহিদ হোসেন, আবদুস সালাম,আবুল খায়ের ভুঁইয়া, আবদুস সালাম আজাদ,আসাদুল করিম শাহীন,তাইফুল ইসলাম টিপু ও মুনীর হোসেন প্রমুখ।