রবিবার, জানুয়ারি ২৪
Shadow

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫১৩ রান

প্রাইম খেলাধুলা  :

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহ গড়েছে বাংলাদেশ। তবে আজ দ্বিতীয় দিনে শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি স্বাগতিকদের। দিনের শুরুতেই হারিয়েছে তিনটি উইকেট। তবে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর লড়াকু ব্যাটিংয়ে ভর করে বাংলাদেশ পার করেছে ৫০০ রানের কোটা। শেষপর্যন্ত স্কোরবোর্ডে ৫১৩ রান জমা করে প্রথম ইনিংস শেষ করেছে টাইগাররা। ৮৩ রান করে শেষপর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন মাহমুদউল্লাহ।

গতকাল চার উইকেটে ৩৭৪ রান নিয়ে শুরু করেন টাইগাররা। দিনের প্রথম সেশন শেষে বাংলাদেশ সাত উইকেট হারিয়ে তোলে ৪৬৭ রান। এই সেশনে ২৮ ওভারে ৯৩ রান তোলে বাংলাদেশ, হারায় তিন উইকেট। দ্বিতীয় সেশনে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি স্বাগতিকরা।

প্রথম দিন ব্যাট করতে নেমে প্রথম সেশনে তামিম-ইমরুল ফিরে গেলেও দ্বিতীয় সেশনে দুর্দান্ত খেলেছেন মুমিনুল-মুশফিক। ক্যারিয়ারের পঞ্চম টেস্ট শতকের দেখা মেলে মুমিনুলের। ১২০ রানের মাথায় তামিম-ইমরুল ফিরে গেলেও মুশফিক-মুমিনুল মিলে টেস্টে বাংলাদেশের তৃতীয় উইকেট জুটিতে গড়েছেন সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড (২৩৬)।

৫৩ বলে ৫২ রান করে ফিরে যান তামিম। দলীয় ৭২ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর মুমিনুল আর ইমরুল রানের চাকাটা অবশ্য স্লথ হতে দেননি। ব্যক্তিগত ৪০ রানে ফিরে যান ইমরুল। বাংলাদেশ ১২০ রানের মাথায় হারায় দ্বিতীয় উইকেট। এরপরই মুশফিক-মুমিনুলের জুটি, যা বাংলাদেশের তৃতীয় উইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ। ওয়ানডে স্টাইলে খেলে ক্যারিয়ারের পঞ্চম শতক তুলে নেন মুমিনুল। দলীয় ৩৫৬ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৯২ রানে আউট হন মুশফিক। পরের বলেই লিটন দাস বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন শূন্য হাতে। দিনশেষে মুমিনুল হক ২০৩ বল খেলে ১৬ চার ও এক ছক্কায় ১৭৫ রানে অপরাজিত থাকেন। তার সাথে মাহমুদউল্লাহ থাকেন নয় রানে।

দ্বিতীয় দিন মুমিনুল-মাহমুদউল্লাহ অপরাজিত থেকে ব্যাটিংয়ে নামেন। তবে, উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই মুমিনুল নিজের রান আর মাত্র এক যোগ করেই ফেরেন। দলীয় ৩৭৬ রানের মাথায় বাংলাদেশ পঞ্চম উইকেট হারায়। এরপর ব্যক্তিগত আট রান করে ফেরেন মোসাদ্দেক হোসেন। দু’জনকেই ফেরান রঙ্গনা হেরাথ। দলীয় ৩৯০ রানের মাথায় ষষ্ঠ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। মিরাজ রান আউট হওয়ার আগে ১৯ বলে করেন ২০ রান। দলীয় ৪১৭ রানের মাথায় স্বাগতিকরা সপ্তম উইকেট হারায়।

দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই বিদায় নেন অভিষিক্ত সানজামুল। ব্যক্তিগত ২৪ রান করে স্ট্যাম্পিং হন তিনি। দলীয় ৪৭৫ রানের মাথায় অষ্টম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত এক রান করে দ্রুতই ফেরেন তাইজুল। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ১৩৪ বলে সাতটি চার আর দুটি ছক্কায় ৮৩ রানে অপরাজিত থাকেন। মোস্তাফিজ আট রানে শেষ ব্যাটসম্যান হয়ে ফেরেন। শ্রীলঙ্কার রঙ্গনা হেরাথ তিনটি, সানদাকান দুটি, লাকমল তিনটি আর পেরেরা একটি করে উইকেট পান।