শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৬
Shadow

এখনও শীর্ষে হুমায়ূন আহমেদ

প্রাইম ডেস্ক :

হুমায়ূন আহমেদের সমুদ্র বিলাস আছে- স্টলে গিয়ে জানতে চান এক তরুণী। পাশে থাকা বন্ধু বললেন, হঠাৎ তুই পুরানো বই কিনছিস কেন? আমি গেল মাসে সেন্টমার্টিন গিয়েছিলাম, ওখানে সমুদ্র বিলাস দেখে এসেছি। তাই বইটি পড়ব। এখনও রয়েছে হুমায়ূন আহমেদ ক্রেজ। অন্য লেখকের দুইটি বই বিক্রি হলে হুমায়ূন আহমেদের হয় ১০টি। প্রতিদিন কমপক্ষে ১০০ বই বিক্রি হয় এ লেখকের। জানালেন ‘অবসর প্রকাশনী’ স্টলের বিক্রেতা।

এ স্টলে ভালো বিক্রি হচ্ছে এ লেখকের ‘মৃন্ময়ীর মন ভাল নেই’। কলেজের শিক্ষক শবনম সুমাইয়া কিনেছেন হূমায়ূনের আমার আপন আঁধার। জানালেন, হূমায়ূনের আত্মজীবনীমূলক বই ভালো লাগে। খুব মজা করে লিখতেন। কাকলী প্রকাশনীতে হুমায়ূন আহমেদের শ্রেষ্ঠ হিমুর কদর বেশি। এ স্টলটি সাজানো হয়েছে তার বড় বড় ছবি দিয়ে।

প্রতীক প্রকাশনা সংস্থায় রয়েছে ‘তোমাদের জন্য রূপকথা’, দাম ৪৫০ টাকা। একজন বইপ্রেমিক বলেন, হুমায়ূন আহমেদ নেই বলেই তার পুরানো বই-ই তার পাঠকরা নিজ সংগ্রহে রাখার চেষ্টা করে। তাই প্রতি মেলাতেই প্রত্যেক ভক্ত একটি-দুইটি বই কিনে মানসিক সন্তুষ্টি লাভ করেন। শনিবার ছুটির দিন হলেও ছিল না উপচেপড়া ভিড়। হয়তো রাজনৈতিক আবহ কিছুটা হলেও প্রভাব ফেলেছে। তবে যতই সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসছিল, ততই মেলায় ভিড় ছড়িয়ে পড়ছিল।

গ্রন্থমেলায় ঢুকতেই হুইল চেয়ারের শাড়ি। ১০টি চেয়ার তৈরি থাকে বইপ্রেমী কাউকে ভেতরে নেওয়ার জন্য। প্রতিদিন ছয়টি তো কাজেই লাগে। তান্নি নামে এক নারী গ্রন্থমেলায় ঘুরলেন আড়াই ঘণ্টা চেয়ারে বসেই। শিশুদের জন্য রয়েছে ছয়টি। বেসরকারি সংগঠন সুইচ ২০১৬ থেকে বিনামূল্যে প্রতিবন্ধীদের মেলা দেখার ব্যবস্থা করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েটসহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এ সেবা দেন।

জাগৃতি প্রকাশনীতে সন্তোষজনক বিক্রি ‘বনের রাজা ব্যঙ্গ’। হুমায়ূন আহমেদের পর জাফর ইকবালের বইয়ের কাটতি বেশি। প্রতীক প্রকাশনা সংস্থায় রয়েছে ‘দস্যি ক’জন’, দাম ২৫০ টাকা। আঁখি ও আমরা ক’জন, দাম ২৫০ টাকা। দুটিরই লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল। এ স্টলে ছড়াকার লুৎফর রহমান রিটনের ভূতের ডিমের ওমলেট কিনলো ১০ বছরের উদয়। সে স্কলাসটিকায় পড়ে। বইটির দাম ৪০ টাকা। এখানে আরও রয়েছে শাহরিয়ার কবিরের হানা বাড়ির রহস্য।

শনিবার গ্রন্থমেলায় এসেছেন প্রবাসী সাংবাদিক নাসিমুন্নাহার নিনি। তিনি জানালেন, গোলাম কুদ্দুছের বায়ান্ন পূর্ব ভাষা আন্দোলন বইটি কিনেছেন। আরও জানালেন, আমেরিকাতেও এ গ্রন্থমেলার কথা মনে পড়ে। তাই এ মাসেই দেশে আসার চেষ্টা করি। শনিবার আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রবন্ধকার ছিলেন মফিদুল হক। আলোচনা হয় রবি গুহ, মুনীর চৌধুরী ও সরদার ফজলুর করিমের ওপর।

আলোচনা করেন বেগম আকতার কালাম, অজয় দাশ গুপ্ত, পিয়াস মজিদ। শনিবার মোট ১৬৪টি বই বের হয়। নতুন বই পড়ন্ত বিকালে মোড়ক উন্মাচন করেন ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির ভিসি অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী। লেখক জহিরুল ইসলাম। গ্রন্থমেলায় বিক্রি হচ্ছে মাথায় দেওয়ার ফুলের মালা, দাম ৪০ টাকা। মালা বিক্রিও কম নয়।