শুক্রবার, মে ৭
Shadow

রাশিয়ায় শপিং মলে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৬৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

রাশিয়ার সাইবেরিয়ায় কেমেরোভো শহরের একটি শপিং সেন্টারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৪ জনে দাঁড়িয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৪১ জনই শিশু। এ ঘটনায় আহত প্রায় ৩০ জন। এছাড়া নিখোঁজ রয়েছেন ১৪ জন।স্থানীয় সময় রোববার ২৫ মার্চ এ ঘটনা ঘটে। শপিং সেন্টারটি থেকে ১২০জনকে উদ্ধার করতে পারলেও নারী ও শিশুসহ আরও অর্ধশতাধিক মানুষ এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।বিবিসির খবরে বলা হয়, শীতকালীন চেরি কমপ্লেক্সের ওপরের তলায় গতকাল রোববার স্থানীয় সময় রাত ১০ টার দিকে আগুন জ্বলতে শুরু করে। এ সময় দুর্ঘটনার শিকার বেশিরভাগই সিনেমা হলে ছিলেন।সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে পোস্ট করা ভিডিওটিতে দেখা যায়, রোববার রাতে আগুনের শিখা থেকে বাঁচতে অনেকেই জানালা থেকে লাফিয়ে পড়ে। এ সময় জানালা দিয়ে শুধু আগুনের কুণ্ডলী বের হতে দেখা যায়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নেভানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।মস্কো থেকে প্রায় তিন হাজার ৬০০ কিলোমিটার পূর্বে কেমেরোভোতে ঘটনাস্থলটি রাশিয়ার অন্যতম কয়লা উৎপাদনকারী অঞ্চল হিসেবে পরিচিত।অগ্নিকাণ্ডের কারণ এখনও জানা যায়নি। তবে কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে তদন্ত শুরু করেছে। তদন্ত কমিটি একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, ওই শপিংমলের দুটি সিনেমার ছাদ ধসে পড়েছে।কেমেরোভো অঞ্চলের জরুরী বিভাগের উপ-প্রধান ইয়েভজি ডেইডুকিন বলেন, ‘আগুন প্রায় এক হাজার ৫০০ বর্গমিটার এলাকা জুড়ে ছিল। আমাদের ২৮৮ জন জরুরী কর্মী, ৬২টি ফায়ার ইউনিট এবং একটি হেলিকপ্টারে একদল কর্মী আগুন নেভাতে যোগ দিয়েছেন।’ইয়েভজি ডেইডুকিন আরও বলেন,‘ শপিং সেন্টারটি নির্মাণ অত্যন্ত জটিল। এতে প্রচুর পরিমাণে জ্বলন্ত পদার্থ রয়েছে। তবে কর্মীরা সবাই অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে। আমরা আগুন নেভানোর জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।’কেমেরোভো অঞ্চলের ডেপুটি গভর্নর ভ্লাদিমির চেরনোভ বলেন, একটি সিনেমা হল থেকেই ১৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।রাশিয়ান সংবাদ মাধ্যম তাসের খবরে বলা হচ্ছে, ওই শপিংমল থেকে এখন পর্যন্ত ১২০ জনকে উদ্ধার করেছে কর্মীরা।এদিকে দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন অস্ট্রিয়ান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘কেমেরোভোতে শপিংমলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের শিকার নিহতদের পরিবার এবং বন্ধুদের প্রতি আমার সমবেদনা। এটা দুঃখজনক যে, এ ঘটনায় অনেক শিশু মারা বা নিখোঁজ রয়েছে। আমি আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।