অর্থনীতি

প্রবৃদ্ধির শীর্ষ তিনে বাংলাদেশ

প্রবৃদ্ধির শীর্ষ তিনে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের বিস্ময়। বাড়ছে দেশের জিডিপির (মোট দেশজ উৎপাদন) পরিমাণ, বাড়ছে অর্থনীতির আকার। পাকিস্তানি দুঃশাসনের হাত থেকে স্বাধীনতা লাভ করার পর মাত্র কয়েক কোটি টাকার বাজেট নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল যে ছোট অর্থনীতির দেশটি, সেই দেশটি আজ পরিচিতি পেয়েছে এশিয়ার ‘টাইগার ইকোনমি’ হিসেবে। ধারণা করা হচ্ছে, চলতি বছরে বিশ্বের সব দেশের মধ্যে তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি হবে বাংলাদেশের। ২০১৯ সালে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। বাংলাদেশের ওপরে থাকবে শুধু লাতিন আমেরিকার দেশ ডোমিনিকা ও আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলের দক্ষিণ সুদান। গত সপ্তাহে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুকে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির এই পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। অবশ্য বাংলাদেশের জিডিপি হিসাব করা হয় অর্থবছর (জুলাই-জুন) ধরে। আই
বছরের প্রথমার্ধে এফডিআই প্রবাহ বেড়েছে ১৯ শতাংশ

বছরের প্রথমার্ধে এফডিআই প্রবাহ বেড়েছে ১৯ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০১৮ সালে ২০১৭ সালের তুলনায় প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের (এফডিআই) প্রবাহ বেড়ে যায় ৬৮ শতাংশ। চলতি বছরেও এ ধারা অব্যাহত রয়েছে। ২০১৯-এর প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন) এফডিআই প্রবাহ বেড়েছে ১৯ শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ পরিসংখ্যানে এ চিত্র প্রকাশ পেয়েছে। দেশে নিবন্ধিত যৌথ এবং শতভাগ বিদেশি বিনিয়োগের বাণিজ্যিক ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানের অর্থ আসে ব্যাংকিং চ্যানেলে। প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর এন্টারপ্রাইজ সার্ভে বা সমীক্ষা চালিয়ে এফডিআই পরিসংখ্যান সংকলন করে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রতিষ্ঠানগুলোর নিট নিজস্ব মূলধন বা ইকুইটি, আয়ের পুনর্বিনিয়োগ বা রিইনভেস্টেড আর্নিং ও আন্তঃপ্রতিষ্ঠান ঋণ বা ইন্ট্রা কোম্পানি লোন—এ তিন ভাগে এফডিআই প্রবাহ হিসাব করা হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে নিট এফডিআই প্রবাহ ছিল ১৬৯ কোটি ১৬ লাখ ৬০ হাজার ডলার। ২০১৮ সালের একই সময়ে প্রবাহে
‘সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশের অর্থনীতি’

‘সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশের অর্থনীতি’

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ অর্থনীতির সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় আছে বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে এখন সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) ওয়াশিংটনে আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের (আইএমএফ) দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক ভাইস প্রেসিডেন্ট হার্ট উয়িং শেফার, বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলংকা ও ভুটানের নির্বাহী পরিচালক অপর্ণা সুভ্রামনি, ভারতের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সিতারমন ও আইএমএফের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মিথসুহিরো ফুরুসাওয়ার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে এক ব্রিফিংয়ে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বাণিজ্য যুদ্ধেও দেশের অর্থনীতি চাপে পড়েনি উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, গত দুই দশকে পৃথিবীতে কয়েকবার অর্থনৈতিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছিল। ১৯৯৭ সালে সারাবিশ্বে যে মহাঅর্থনৈতিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছিল তাতে ইন্দোনেশিয়
২০১৯ সালে বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি বাংলাদেশে: আইএমএফ

২০১৯ সালে বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি বাংলাদেশে: আইএমএফ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বহুমাত্রিক উন্নয়নের যাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে বাংলাদেশ বিশ্বে ঈর্ষণীয় সফলতা অর্জন করেছে। ফলে বর্তমান বিশ্বে বাংলাদেশ একটি রোল মডেল হিসেবে আলোচিত। সেই আলোচনাকে নতুন মাত্রা দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সর্বশেষ প্রতিবেদন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে বাংলাদেশের অর্থনীতি বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে যাচ্ছে। ১৬ অক্টোবর প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রফতানি, রেমিট্যান্স এবং উৎপাদন খাতের সুদৃঢ় অবস্থানের কারণে এই উচ্চমাত্রার প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আইএমএফ’র সদর দপ্তরে প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক- এর প্রতিবেদন অনুসারে, বাংলাদেশের জিডিপি চলতি অর্থ বছরে ৮ দশমিক ৮ শতাংশ বাড়বে। এর আগে এপ্রিল মাসে প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক এর প্রতিবেদনে প্রবৃদ্ধির প্রক্ষেপণ করা হয়েছিল ৭ দশমিক ৩ শতাংশ। আইএমএফের
এগিয়ে যাচ্ছে দেশের পর্যটন শিল্প

এগিয়ে যাচ্ছে দেশের পর্যটন শিল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি। প্রাচীনকাল থেকেই এ দেশে পর্যটকদের আগমন ইতিহাসে চিরস্মরণীয় হয়ে আছে। বাংলাদেশ অফুরন্ত পর্যটন সম্ভাবনার দেশ। বিশ্বের যে কোন পর্যটককে আকৃষ্ট করার মতো সকল উপাদান রয়েছে এদেশে। বাংলাদেশের গৌরবময় ইতিহাস, সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, বন্ধু-বাৎসল মানুষ ও তাদের অকৃত্রিম আতিথেয়তা, নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন, ঐতিহাসিক পুরাকীর্তি, দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত, বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট, বন-বনানী, জীব-বৈচিত্র্য এবং বৈচিত্র্যময় আদিবাসী সংস্কৃতি যে কোন পর্যটকের নিকট অত্যন্ত আকর্ষণীয়। বর্তমান বিশ্বে অর্থনীতির ক্রমবর্ধমান খাতসমূহের মধ্যে অন্যতম সেবাখাত। সেবাখাতের সর্ববৃহৎ অংশীদার পর্যটন শিল্প। কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে পর্যটন শিল্প। ২০১৭ সালে বাংলাদেশের জিডিপিতে এ খাতের প্রত্যক্ষ অবদান ছিল ৪২
বিশ্বসেরা বাংলাদেশ, প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে ৭.৮ শতাংশ

বিশ্বসেরা বাংলাদেশ, প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে ৭.৮ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের বিস্ময়। বাড়ছে দেশের জিডিপির (মোট দেশজ উৎপাদন) পরিমাণ, বাড়ছে অর্থনীতির আকার। পাকিস্তানি দুঃশাসনের হাত থেকে স্বাধীনতা লাভ করার পর মাত্র কয়েক কোটি টাকার বাজেট নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল যে ছোট অর্থনীতির দেশটি, সেই দেশের বাজেট আজ পাঁচ লাখ কোটিকেও ছাড়িয়ে গেছে। ছোট্ট অর্থনীতির দেশটি আজ পরিচিতি পেয়েছে এশিয়ার ‘টাইগার ইকোনমি’ হিসেবে। এদিকে ২০১৯-২০ অর্থবছর শেষে বাংলাদেশের জিডিপির প্রবৃদ্ধি হবে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ, যা হতে যাচ্ছে বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ। বিশ্বব্যাপী আর্থিক মন্দার প্রভাবে বেশিরভাগ দেশে প্রবৃদ্ধি অর্জন কমলেও ব্যতিক্রম বাংলাদেশ। অর্থাৎ, প্রবৃদ্ধি অর্জনে সবার থেকে উপরে লাল-সবুজের পতাকা। শুধু তাই নয়, বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি কমে তিন শতাংশে দাঁড়ালেও সেক্ষেত্রে উল্টো দাপট দেখিয়ে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ও বিশ্বব্যাংকের বার্ষিক সভায় প্র
বিলিয়ন ডলারেরও বেশি রেমিট্যান্স এসেছে প্রথম তিন মাসে

বিলিয়ন ডলারেরও বেশি রেমিট্যান্স এসেছে প্রথম তিন মাসে

নিজস্ব প্রতিবেদক : চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। এই অঙ্ক গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ১৬ দশমিক ৫৮ শতাংশ বেশি। সেপ্টেম্বর মাসে ১৪৬ কোটি ৮৪ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে দেশে। মাস হিসাবে প্রবৃদ্ধি হয়েছে প্রায় ২৯ শতাংশ। মাসের হিসাবে চতুর্থ সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছে সেপ্টেম্বরে। প্রতি বছর দুই ঈদের পর রেমিট্যান্স প্রবাহ কিছুটা কম থাকে। কিন্তু আগস্টে ঈদুল আজহার পরে রেমিট্যান্স না কমে বরং বেড়েছে। দুই শতাংশ হারে প্রণোদনা, জনশক্তি রপ্তানি বৃদ্ধি এবং বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। স্থানীয় বাজারে ডলারের তেজিভাব এবং হুন্ডি ঠেকাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নানা পদক্ষেপের কারণে বেশ কয়েকমাস ধরেই রেমিট্যান্স বাড়ছে। এর আগে গত মে মাসে রোজার ঈদকে সামনে রেখে ১৭৪ কোটি ৮১
৯৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে নতুন দুটি মেট্রোরেল প্রকল্প

৯৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে নতুন দুটি মেট্রোরেল প্রকল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক : উত্তরা থেকে মতিঝিলের ২০ কিলোমিটার দীর্ঘ এলিভেটেড মেট্রোরেলের সার্বিক নির্মাণকাজ পুরোদমে এগিয়ে চলছে। এ পর্যন্ত প্রকল্পটির ৩০ দশমিক ৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ইতোমধ্যে উত্তরাসহ বিভিন্ন অংশে শুরু হয়েছে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ। দিয়াবাড়ি এলাকায় ডিপো ও ভূমি উন্নয়নের কাজ শতভাগ সম্পন্ন হয়েছে। উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক তিন সাত কিলোমিটার ভায়াডাক্ট এ স্টেশন নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে ৫৫ শতাংশ। এতেই দৃশ্যমান হয়েছে স্বপ্নের এ প্রকল্প। এরই মধ্যে নতুন সুখবর নিয়ে হাজির মেট্রোরেল। উত্তরা-কমলাপুর ছাড়াও আরো দুইটি মেট্রোরেল প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মেট্রোরেলের নতুন দুই প্রকল্পসহ মোট ১০ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় এক লাখ ২৫ হাজার ২৩ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকার দেবে ৩০ হাজার ৪৬৬ কোটি, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৫১৫ কোটি ৮৪ লাখ
অর্থনীতিকে এগিয়ে নেবে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি: মোমেন

অর্থনীতিকে এগিয়ে নেবে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি: মোমেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে নিজস্ব প্রযুক্তি উদ্ভাবনে তরুণদের নিয়োজিত হবার আহবান জানিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল মোমেন। সোমবার (১৪ অক্টোবর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তথ্যপ্রযুক্তি প্রদর্শনী ‘ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো ২০১৯’উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ‘মেড ইন বাংলাদেশ’স্লোগানে শুরু হয়েছে তিনদিন ব্যাপী দেশের সর্ববৃহৎ প্রযুক্তি প্রদর্শনী । ১৪ অক্টোবর থেকে ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে প্রদর্শনীটি। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংকের গবেষণা অনুযায়ী বাংলাদেশ এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দ্রুততম অর্থনীতির একটি। জাতিসংঘ বলছে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে গত দশ বছরে ৪০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রণীত‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’পরিকল্পনা
কৃষিযন্ত্রে কর্মসংস্থান হচ্ছে তরুণদের, বাড়ছে উৎপাদন

কৃষিযন্ত্রে কর্মসংস্থান হচ্ছে তরুণদের, বাড়ছে উৎপাদন

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের কৃষিকাজে যুক্ত হচ্ছেন শিক্ষিত তরুণেরা। কৃষিকাজের প্রথাগত পদ্ধতির বিপরীতে তাঁরা করছেন আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার। এতে একদিকে কৃষিশ্রমিক সংকটের চ্যালেঞ্জ যেমন মোকাবিলা করা যাচ্ছে, তেমনি নতুন কর্মসংস্থানও হচ্ছে। পাশাপাশি কমে আসছে ফসল উৎপাদনের খরচ ও সময়। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএইউ) কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের এক গবেষণা বলছে, ফসল আবাদে চাষ, সেচ, নিড়ানি, কীটনাশক প্রয়োগে ৮০ থেকে ৯৫ শতাংশ যান্ত্রিকীকরণ হয়েছে। অথচ ফসল রোপণ, সার দেওয়া, কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই ও শুকানোর ক্ষেত্রে যন্ত্রের ব্যবহার ১ শতাংশের কম। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএইউ) কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের অধ্যাপক মঞ্জুরুল আলম বলেন, গ্রামীণ শ্রমশক্তির ৪০ শতাংশ এখন কৃষিকাজ করে। ২০৩০ সাল নাগাদ তা কমে ২০ শতাংশ হবে। ফলে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ ছাড়া আর বিকল্প নেই। কায়িক শ্রমের বদলে যন্ত্রের মাধ্যমে কৃষিকাজে তর