শুক্রবার, জানুয়ারি ২২
Shadow

উপসম্পাদকীয়

তৃণমূলকে ভুলে যাবেন না

তৃণমূলকে ভুলে যাবেন না

উপসম্পাদকীয়
বোরহান বিশ্বাস : কয়েকদিন আগের কথা। রাজধানীর একটি খেলার মাঠে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত থাকার সৌভাগ্য হয়েছিল আমার। মাঠের একটি গোলপোস্টের পেছনে বিশাল একটি ডিজিটাল ব্যানার টানানো হয়েছিল। কারও কারও অভিযোগ ছিল, মাঠে খেলা চলার সময় ব্যানারের গায়ে বল লেগে তা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। পরিচিত এক তরুণকে দেখলাম- মাঠে অবস্থান করা সদ্য নির্বাচিত আওয়ামী লীগের একটি অঙ্গ সংগঠনে নতুন পদ পাওয়া এক নেতার (যিনি অনুষ্ঠানের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন) কাছে বেশ সমীহ করেই ব্যানারের বিষয়ে কথা বললেন। কিন্তু তিনি যেন ওই তরুণকে চিনলেনই না। একটা কথাও বললেন না। সোজা হেঁটে চলে গেলেন। তার ওই ব্যবহারে অপমানবোধ করে তরুণটি যে মনে কষ্ট পেয়েছিলেন সামান্য দূর থেকে দাঁড়িয়ে তা বুঝতে পারলাম। মনোকষ্ট হওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। কারণ এই তরুণকেই এক সময় দেখেছি ওই সদ্য পদপ্রাপ্তের আহ্বানে আগস্টের প্রথম প্রহরে ...
বিজয়ের মাসে পদ্মা জয়

বিজয়ের মাসে পদ্মা জয়

উপসম্পাদকীয়
কবীর চৌধুরী তন্ময় : যে চিনে-সেই কিনে, আবার যে জানে-সেই মাথা নত করে মানে, সম্মান-শ্রদ্ধা করে-এটি আমার ব্যক্তি জীবনের অভিজ্ঞতা-উপলব্ধি। কারণ, যে চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেনি, তার কাছে জয়-পরাজয় একটা খেলা মাত্র। যে দুর্যোগ মোকাবেলা করেনি, তার কাছে বৃষ্টি-জলোচ্ছ্বাস বিলাসিতার উপমা মাত্র। আর যে পানির সঙ্গে যুদ্ধ করে জীবন ও জীবিকা নির্বাহ করে, সেই জানে শুধু সাঁতার কাটার কৌশল জানা থাকলেই হবে না, তীব্র স্রোতে কিভাবে নিজেকে ভাসিয়ে জীবন রক্ষা করতে হয়, স্রোতের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আত্মরক্ষা করতে হয়- এগুলো অভিজ্ঞতার বিষয়, সময়ের গতির আগেই সিদ্ধান্তের বিষয়। কিন্তু দুঃখজনক হলো, আমাদের দেশের একশ্রেণির মানুষ আছেন যারা সব সময় কৃত্রিম স্রোতের পক্ষে থাকতে ভালোবাসেন। গুজবের স্রোতে গা ভাসিয়ে দেন। সত্য-মিথ্যা কিংবা তথ্য উপাত্ত আর অভিজ্ঞতা-সাহসের অভাবে যেন নিজেরাই নিজেদের মনোবল হারিয়ে ফেলেন। স্বাধীনতাবিরোধী-রাজাকার...
আমার মা

আমার মা

উপসম্পাদকীয়
তোফায়েল আহমেদ : আজ মায়ের চতুর্দশতম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০০৬-এর ২৫ ডিসেম্বর ৯২ বছর বয়সে সবার মায়া ত্যাগ করে তিনি এ পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন। পৃথিবীতে প্রতিটি সন্তানের কাছে মা পরম আরাধ্য। আমার জীবনেও মা প্রিয় মানুষ শ্রেষ্ঠ সম্পদ। মায়ের স্নেহ-আদরে বড় হয়েছি। মায়ের পবিত্র মুখখানি যখনই চোখের সামনে ভেসে ওঠে মনে হয় এখনই মায়ের কাছে ছুটে যাই। জন্ম থেকে পরিণত বয়স পর্যন্ত প্রতিটি ধাপে মা যত্ন করে আমায় গড়ে তুলেছেন। মা ছাড়া এক মুহূর্তও থাকতে পারতাম না। শৈশব আর কৈশোরের সেই দিনগুলোর কথা ভাবলে দুই চোখ ভিজে আসে। প্রতিবার নির্বাচনী জনসংযোগে যাওয়ার প্রাক্কালে কাছে টেনে পরম আদরে কপালে চুমু খেয়ে সার্বিক সাফল্য কামনায় প্রাণভরে দোয়া করতেন মা। মমতাময়ী মায়ের কোমল স্মৃতি খুব মনে পড়ে। আমার বাবা ১৯৭০-এর ২৫ এপ্রিল ৬২ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। সেদিন জনসভা ছিল চট্টগ্রামের মিরসরাইতে। বাবার মৃত্যু সংবাদ আমার আগে জাতির জনক ব...
বঙ্গবন্ধুর জেলজীবন ও সংসার

বঙ্গবন্ধুর জেলজীবন ও সংসার

উপসম্পাদকীয়, লাইফস্টাইল
ডঃ আতিউর রহমানঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ‘কারাগারের রোজনামচা’ লিখতে শুরু করেন ১৯৬৬ সালে। ১৯৬৬ সালের ২ জুন তা শুরু হয়ে শেষ হয়েছে ১৯৬৭ সালের ২২ জুন। এর আগের কারাজীবনের কথা কারাগারের রোজনামচায় নেই। সেসব কথা আছে কিছু ইতিহাসের বইয়ে আর গোয়েন্দা প্রতিবেদনগুলোতে। তবে কারা ব্যবস্থার অমানবিকতা ও অন্যায্যতা নিয়ে এ বইতে দারুণ কিছু বিষয় তিনি তুলে ধরেছেন। জেল ব্যবস্থার এই কালো দিকের ওপর আলো ফেলে তিনি অনেকের চোখ খুলে দিতে সক্ষম হয়েছেন বলে আমার বিশ্বাস। তার জেলজীবন ও সংসারজীবন ছিল গায়ে গায়ে লাগানো। একটি ছেড়ে আরেকটিতে তিনি আনায়াসে ঢুকে পড়েছেন। তবে জেলজীবনের একাকিত্ব তাকে কষ্ট দিয়েছে। সেসব কথা বুকে চেপে রেখেছেন। পরিবারের সদস্যদের জানতে দেননি। মাঝে মাঝে মানিক মিয়া ও সোহরাওয়ার্দীকে এসব কষ্টের কথা খানিকটা জানিয়েছেন। এই বইয়ের ভূমিকা লিখতে গিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা জানিয়েছেন কারাজীবনের এত কষ্টের কথা তিনি তাদের জান...
বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের অন্যায্য দাবি অগ্রাহ্য করেন বঙ্গবন্ধু’

বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের অন্যায্য দাবি অগ্রাহ্য করেন বঙ্গবন্ধু’

উপসম্পাদকীয়
প্রাইম ডেস্ক : স্বাধীনতার পর ত্রাণ ও ঋণ সহায়তা নিয়ে আসা বিশ্ব ব্যাংক, আইএমএফ ও ইউএসএইডের বিভিন্ন ‘অন্যায় অন্যায্য’ দাবি এবং চাপিয়ে দেওয়া সিদ্ধান্ত দেশের স্বার্থের বিরুদ্ধে গেলে বঙ্গবন্ধু তা দৃঢ়তার সঙ্গে অগ্রাহ্য করেন। পাশাপাশি যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠনের এবং ফিরে আসা লাখ লাখ শরণার্থীর বন্দোবস্তে বঙ্গবন্ধু অনেকগুলো নীতি গ্রহণ করেন। এছাড়াও বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে। স্বাধীন বাংলাদেশ পুনর্গঠনে বঙ্গবন্ধুর পরিকল্পনা নিয়ে শুক্রবার রাতে আয়োজিত এক ওয়েবিনারে বক্তারা বঙ্গবন্ধুর এসব বিষয় তুলে ধরেন। ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা মসিউর রহমান, কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং স্কলার গবেষক রওনক জাহান, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও কলামনিস্ট সৈয়দ বদরুল আহসান এবং তরুণ লেখক ও গবেষক হাসান মোরশেদ এসব বিষয় তুলে ধরেন। আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা উপকমিটি আয়োজিত ওয়েবিনারের ...
বঙ্গবন্ধুকন্যা থেকে জননেত্রী

বঙ্গবন্ধুকন্যা থেকে জননেত্রী

উপসম্পাদকীয়
নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ আমাদের দেশের সর্ববৃহৎ, অন্যতম প্রাচীন, ঐতিহ্যবাহী ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার একটি রাজনৈতিক দল। ১৯৪৯ সালে ২৩ জুন প্রতিষ্ঠা লাভের পর দীর্ঘ সাত দশকেরও অধিক সময় ধরে আওয়ামী লীগ আমাদের জাতীয় রাজনীতির অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে। বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা স্বাধীনতা লাভ করেছি। সংগঠনগতভাবে এটাই আওয়ামী লীগের সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বাঙালি জাতির মুক্তি বা স্বাধীনতা; ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা তা লাভ করি। বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় স্বপ্ন ছিল ক্ষুধা, দারিদ্র্য, অশিক্ষা ও কুসংস্কারমুক্ত একটি গণতান্ত্রিক-অসাম্প্রদায়িক উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর কথায় সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা। অর্থাৎ জনগণের অর্থনৈতিক মুক্তি, সমাজের বঞ্চিত-অবহেলিত, ক্ষমতাহীন ও অধিকারহীন মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা। বঙ্গবন্ধ...
তোরা যে যা বলিস ভাই আমার সোনার হরিণ চাই

তোরা যে যা বলিস ভাই আমার সোনার হরিণ চাই

উপসম্পাদকীয়
রফিকুল ইসলাম রতন : ভয়াবহ দুর্নীতির সবচেয়ে আলোচিত প্রতিষ্ঠানের নাম স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। দেশের বহু প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কম বেশি দুর্নীতির অভিযোগ থাকলেও সবাইকে টেক্কা দিয়ে শীর্ষ স্থান অধিকার করেছে সংস্থাটি। দুর্নীতি-লুটপাট আর অনিয়ম-বিশৃঙ্খলায় আকণ্ঠ ডুবে আছে দেশের গুরুত্বপূর্ণ এই স্বাস্থ্য খাত। তৃণমূল পর্যায়ের স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর পর্যন্ত সর্বত্রই অভিন্ন চিত্র বিদ্যমান। করোনা মহামারির মধ্যে এই প্রতিষ্ঠানটি জন্ম দিয়েছে নতুন নতুন দুর্নীতির ভিন্ন ভিন্ন রূপ। তাদের ওপর ভর করেই ড্রাইভার মালেক, প্রতারক সাহেদ, কর্মচারী আবজাল, ডাক্তার সাবরিনাদের জন্ম হয়েছে। এখন দেশের বেকার যুবকদের একমাত্র চাওয়া হচ্ছে ড্রাইভার পিয়ন কেরানি পদে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে একটি চাকরি। সম্প্রতি প্রকাশ্যে মালেক, সাহেদ, আবজাল, সাবরিনাসহ কুশীলবদের নাম এলেও এদের পৃষ্ঠপোষক, মদদদাতা, সরাসরি নিয়ন্ত্রণ কর্ম...
টেকসই উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা

টেকসই উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা

উপসম্পাদকীয়, জাতীয়
ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ : কভিড-১৯ বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সব দেশে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। মহামারির প্রকোপ না কমলেও নানা বিধিনিষেধ তুলে দেওয়ায় অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। এ নিয়ে আমাদের মধ্যে আশাবাদের সঙ্গে অতি আশাবাদও লক্ষ্য করা যাচ্ছে, যা বিপদের কারণ হতে পারে। তাই আমাদের ঘুরে দাঁড়ানো যেন স্থায়ী হয়, কাক্সিক্ষত উন্নয়ন যেন টেকসই হয়, সে জন্য কিছু বিষয়ে আমাদের বিশেষ মনোযোগ দেওয়া দরকার। মহামারি আমাদের স্বাস্থ্য খাতকে মূল চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়েছে। তাই টেকসই উন্নয়নের পথে এখন নতুন বাস্তবতায় প্রথমেই করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমাতে হবে। একইসঙ্গে বিদ্যমান অর্থনৈতিক, সামাজিক ও প্রশাসনিক সমস্যাগুলো দূর করার প্রচেষ্টা জোরদার করতে হবে। আমাদের আগে থেকেই স্বাস্থ্য খাত, শিক্ষা খাত, পরিবহন খাত, সামাজিক সুরক্ষা খাত এবং অর্থনীতিতে অনেক চ্যালেঞ্জ ছিল। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে করোনা মোকাবেলা। ফলে উদ্ভূত পরিস্থ...
সাদাসিধে কথা :একজন তারিক আলী

সাদাসিধে কথা :একজন তারিক আলী

উপসম্পাদকীয়
মুহম্মদ জাফর ইকবাল : যখন আমাদের দেশে করোনার মহামারী শুরু হয়েছিল তখন এই ভাইরাসটিকে একটি নির্বোধ ভাইরাস ছাড়া বেশি কিছু ভাবিনি। পৃথিবীর অনেক দেশ থেকে আমাদের দেশে মৃত্যুর হার অনেক কম বলে মাঝে মাঝে খানিকটা সান্ত¡নাও পাওয়ার চেষ্টা করেছি, কিন্তু যতই দিন যাচ্ছে গভীর বেদনা নিয়ে আবিষ্কার করছি এই ভাইরাসটি বেছে বেছে আমাদের প্রিয় মানুষগুলোকে নিয়ে যাচ্ছে। এরকম সর্বশেষ মানুষ হচ্ছেন জিয়াউদ্দিন তারিক আলী, আমাদের ‘তারিক ভাই’। যখন তার চলে যাওয়ার খবরটির সঙ্গে সঙ্গে কম্পিউটারের স্ক্রিনে তার ছবিটি ভেসে উঠল আমি একেবারে স্তব্ধ হয়ে গেলাম। একবারও ভাবিনি তিনি এভাবে চলে যাবেন। খবরটি পড়েও বিশ্বাস হতে চায় না। তারিক আলীকে আমি বহুদিন থেকে চিনি। সেই আশির দশকের শেষে ক্যালিফোর্নিয়া থেকে নিউজার্সি এসে তার সঙ্গে আমাদের পরিচয় হয়েছিল। বাংলাদেশের জন্য সময়টি তখন খারাপ, আমেরিকার বাঙালীদের মাঝেও তার প্রভাব পড়েছে। একদিন এক বা...
আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু

উপসম্পাদকীয়, জাতীয়
তোফায়েল আহমেদ : আওয়ামী লীগের শুভ জন্মদিন প্রতি বছর দেশজুড়ে সগৌরবে পালিত হয়। এবার ‘করোনাভাইরাস’ মহামারী আকারে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ায় বাংলাদেশও আক্রান্ত। জনস্বাস্থ্য রক্ষায় সতর্কতার অংশ হিসেবে ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ’ তথা ‘মুজিববর্ষ’, ‘গণহত্যা দিবস’, ‘স্বাধীনতা দিবস’, ‘বাংলা নববর্ষ’, ‘মুজিবনগর দিবস’, ‘শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ এবং ‘৬ দফা দিবস’ পালন উপলক্ষে গৃহীত রাষ্ট্রীয় ও দলীয় অনুষ্ঠানাদি সীমিত বা স্থগিত করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। আশা করি, সুষ্ঠু সমন্বয়ের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশাবলী সরকার অক্ষরে অক্ষরে বাস্তবায়ন করবে এবং দেশের সর্বস্তরের জনসাধারণ দায়িত্বশীল আচরণ প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে এ ভয়াবহ দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবে। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে আও...