রাজনীতি

যুক্তরাষ্ট্র নাকি অস্ট্রেলিয়া! কোথায় রাজনৈতিক আশ্রয় নিচ্ছেন এস কে সিনহা?

যুক্তরাষ্ট্র নাকি অস্ট্রেলিয়া! কোথায় রাজনৈতিক আশ্রয় নিচ্ছেন এস কে সিনহা?

প্রাইম ডেস্ক : জুডিশিয়াল ক্যূ করে তৃতীয়পক্ষকে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করতে সাহায্য করে রাষ্ট্রপতি হওয়ার স্বপ্ন ভেঙ্গে যাওয়ায় বিদেশের মাটিতে বসে নির্বাচিত ও গণতান্ত্রিক একটি সরকারের বিরুদ্ধে অসত্য ও ভুল তথ্যে ভরা বই প্রকাশ করে মিথ্যাচার ছড়াচ্ছেন বাংলাদেশের সাবেক বিতর্কিত প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। বইতে তিনি মিথ্যা ও ভুলে ভরা তথ্য উপস্থাপন করে মূলত তার উপর সরকারের কথিত অত্যাচারের কথা তুলে ধরে রাজনৈতিক আশ্রয় চাওয়ার জন্যই এস কে সিনহার এই ফন্দি। দুর্নীতির মাধ্যমে আয়করা অর্থ বিদেশের মাটিতে নিরাপদে বিনিয়োগ করা এবং রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করে বিলাসবহুল দেশে বাকি জীবন আনন্দে পার করাই এস কে সিনহার মূল উদ্দেশ্য। সূত্র বলছে, বিচারপতি থাকাকালীন অবৈধ উপায়ে অর্জন করা সম্পদ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র অথবা অস্ট্রেলিয়ায় রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করার সকল প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছেন এস কে সিনহা। বিএনপি-জামায়াতে
প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যেকোন ষড়যন্ত্র রুখে দিতে প্রস্তুত আলেম-ওলামারা

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যেকোন ষড়যন্ত্র রুখে দিতে প্রস্তুত আলেম-ওলামারা

প্রাইম ডেস্ক : সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা মিথ্যা-বানোয়াট কথা উল্লেখ করে বই লিখে সরকারকে বিব্রত করার চেষ্টা করছেন বলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন দেশের সম্মানিত আলেম সমাজ। এদিকে সিনহার মতো লোভী মানুষ হুমকির মুখে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন এমন অসত্য কথা বিদেশি গণমাধ্যমকে বলে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছেন বলে মনে করছেন ইসলামপ্রিয় জনতা। জানা যায়, সিনহার লেখা বইটি গত ১৬ সেপ্টেম্বর, রবিবার এ্যামাজনে উন্মুক্ত করার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে বইটি প্রকাশের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হেয় করার চক্রান্তের বিষয়টি উন্মোচিত হয় আলেম-ওলামাদের কাছে। প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যেকোন ষড়যন্ত্র রুখে দিতে প্রস্তুত বলেও একাধিক আলেম-ওলামা প্রকাশ্যে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ বেফাকের সহ-সভাপতি মুফতি ফয়জুল্ল
আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে বিনিয়োগ করছে বিএনপি

আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে বিনিয়োগ করছে বিএনপি

প্রাইম ডেস্ক : খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে দলীয় ব্যর্থতা ও সাংগঠনিক দুর্বলতা ঢাকতে এবার জাতীয় ঐক্য ও যুক্তফ্রন্টকে উল্টো অর্থ দিয়ে সহায়তা দিয়ে সরকার বিরোধী আন্দোলন চালাতে তৎপর হয়েছে বিএনপি। সেই লক্ষ্যে এবার জাতীয় ঐক্য ও যুক্তফ্রন্টের দুই নেতা ড. কামাল ও বি. চৌধুরীর সহায়তা নিতে তাদের দ্বারস্থ হয়েছে বিএনপি। বিএনপির ডোনারদের স্পষ্ট বক্তব্য হলো, কাড়ি কাড়ি অর্থ ব্যয় করেও খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন ও সরকার বিরোধী আন্দোলন চাঙ্গা করা সম্ভব হয়নি। সুতরাং এবার ড. কামাল ও বি. চৌধুরীর ভিন্ন ধারার আন্দোলনকে অনুসরণ করে খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্ত করার পক্ষে মতামত দিয়েছেন বিএনপির ডোনারখ্যাত ব্যবসায়ী নেতা আবদুল আউয়াল মিন্টু ও মির্জা আব্বাস। তাদের পরামর্শ ও আদেশ অনুযায়ী লজ্জা-শরম ভুলে তাই ২১শে সেপ্টম্বর বি. চৌধুরীর বাসায় গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার ব্
আপোষহীন আইন ও প্রধান বিচারপতির দেশত্যাগ

আপোষহীন আইন ও প্রধান বিচারপতির দেশত্যাগ

প্রাইম ডেস্ক : আবারো সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রের মধ্যমণি হিসেবে আবির্ভুত হয়েছেন সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা। যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সদস্যদের অর্থায়নে প্রকাশিত নিজের লেখা একটি বই প্রকাশ করে আবারো বিশেষ মহলের ইন্ধনে সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রের ডালপালা মেলে বসেছেন সিনহা। উল্লেখ্য তিনি অসুস্থতার কথা বলে তিনি ছুটি নিয়ে বিদেশ গিয়েছিলেন। পরবর্তীতে সরকারের সাথে কোনো প্রকার আলোচনা ছাড়াই আইন লঙ্ঘন করে বিদেশে বসে নিজের পদত্যাগ পত্র জমা দেন। অসুস্থতার কথা বলে রাষ্ট্রপতির কাছে ছুটির আবেদন করেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। গত ৩ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত ছুটির আবেদন করেন তিনি। এই লিখিত আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, দীর্ঘদিন থেকে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। ছুটির এই আবেদনে রাষ্ট্রপতি সাড়া দিলে বিচারপতি বিদেশ ভ্রমণের বৈধতা পান। তবে দেশ ছাড়ার একেবারে আগ মুহূর্তে তিনি গণমাধ্
আপিল বিভাগের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির লেখনীতে এস কে সিনহা

আপিল বিভাগের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির লেখনীতে এস কে সিনহা

প্রাইম ডেস্ক : সম্প্রতি এস কে সিনহার লেখা একটি বইকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন মহলে বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। তার লেখা বইয়ে তিনি সরকারের নানা রকম সমালোচনা করেছেন, পাশাপাশি সরকারের বিরুদ্ধে তাকে দেশ ত্যাগে বাধ্য করা সহ নানাবিধ অভিযোগ করেছেন। এবারই প্রথম নয়, এর আগেও একাধিকবার বিভিন্ন কর্মকান্ড কিংবা বিতর্কিত মন্তব্য করে সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন। কেমন প্রকৃতির মানুষ কিংবা বিচারপতি ছিলেন এস কে সিনহা? সেই সম্পর্কে এক লেখাতে আলোকপাত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। যিনি দীর্ঘদিন এস কে সিনহার সাথে এক সাথে বিচারকার্য পরিচালনা করেছেন। এস কে সিনহাকে নিয়ে গত আগস্ট মাসে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক এর লেখা কলামে উঠে এসেছে এস কে সিনহা সংশ্লিষ্ট নানা ঘটনা। তিনি লিখেছেন, ‘বিচারপতি সিনহার
খালেদার পছন্দ শর্মিলা, দলীয় নেতাকর্মীদের পছন্দ জোবায়দা

খালেদার পছন্দ শর্মিলা, দলীয় নেতাকর্মীদের পছন্দ জোবায়দা

প্রাইম ডেস্ক : বিএনপির দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এখন জেলে। একাদশ নির্বাচনের আগে ছাড়া পাবেন কিনা তা নিয়ে দলের ভেতরে রয়েছে সংশয়। দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা তারেক রহমান গত ১০ বছর ধরে দেশের বাইরে লন্ডনে পলাতক। দুজনের বিরুদ্ধেই বেশ কটি দুর্নীতির মামলা চলমান। আগামী মাসেই ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় দেওয়া হবে। এই রায়ে তারেক রহমানের বড় ধরণের সাজা হওয়ার আশঙ্কা করছে বিএনপি। তারেকের বড় ধরণের সাজা হলে সে আর আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবে না। এ অবস্থায় দলটির প্রত্যক্ষ নেতৃত্বে জিয়া পরিবারের কেউই থাকবে না। তাই তীব্র নেতৃত্ব সংকটের কারণে বিএনপি এখন অনেকটা দিশেহারা। এমন পরিস্থিতিতে বিএনপির হাল ধরতে রাজনীতিতে যুক্ত হচ্ছেন খালেদা জিয়ার দুই পুত্রবধু জোবায়দা রহমান এবং শর্মিলা রহমান সিঁথি। প্রকৃতপক্ষে কে বিএনপির হাল ধরবে, এই ব্যাপার নিয়ে অনেকদিন ধরেই দলের মধ্যে একধরণের অন্তঃকোন্দল চলে আসছে। খাল
বিএনপি ভঙ্গুর ও সন্ত্রাসীদের আড্ডাস্থল, যুক্তরাষ্ট্রের অসহযোগিতায় হতাশ নেতারা

বিএনপি ভঙ্গুর ও সন্ত্রাসীদের আড্ডাস্থল, যুক্তরাষ্ট্রের অসহযোগিতায় হতাশ নেতারা

প্রাইম ডেস্ক : বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করতে এবং যেকোন উপায়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থার মিশন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সফরে গিয়েছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম। তবে খালেদা জিয়া দুর্নীতি মামলার আসামী হওয়ায় এবং জামায়াত-শিবিরের মত সন্ত্রাসী সংগঠনের আশ্রয়দানকারী হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতাদের আর্জি নাকোচ করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে। প্রমাণিত দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ায় নির্বাচনের আগে খালেদাকে মুক্ত করতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের মাধ্যমে চাপ সৃষ্টি করার মিশন সেই অর্থে ব্যর্থ হয়েছে। বিএনপির ভঙ্গুর রাজনীতি, অবাধ দুর্নীতির পৃষ্ঠপোষকতা এবং জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ বিস্তারে অন্ধ সমর্থনের কারণে মূলত যুক্তরাষ্ট্র ও জাতিসংঘ বিএনপির অনৈতিক দাবি দাওয়াকে সরাসরি না বলে দিয়েছে বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে। একটি স্বাধীন দেশের বিচার ব্যবস্থায় হস্তক্ষেপ করতেও অনীহা প্রকা
খালেদার মুক্তি আন্দোলন বাদ দিয়ে মনোনয়ন নিয়ে দৌড়ঝাঁপ বিএনপি নেতাদের

খালেদার মুক্তি আন্দোলন বাদ দিয়ে মনোনয়ন নিয়ে দৌড়ঝাঁপ বিএনপি নেতাদের

প্রাইম ডেস্ক : আগামী অক্টোবরে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার কথা রয়েছে। তাই আসন্ন সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে খালেদার মুক্তি আন্দোলন বাদ দিয়ে বিএনপি থেকে মনোনয়ন নিশ্চিত করতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন নেতারা। কেন্দ্রীয় বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ রাখছেন। পাশাপাশি দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় নিজ নিজ পক্ষে নেতাকর্মীদের সংগঠিত করার তৎপরতাও অব্যাহত রেখেছেন তারা। বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা নির্বাচনের আগে বেগম জিয়াকে কারামুক্ত করে তারপর তাকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের দাবীতে আন্দোলন করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠা করে নির্বাচন করার পক্ষে ছিলো। তবে, নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি নিশ্চিত করার কথা বিএনপি বললেও নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে ততই খালেদার কথা ভুলে নির্বাচনের মনোনয়ন নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পরেছে। বর্তমানে তারা খালেদার মুক্তির চেয়ে নির্বাচনকে গুরুত্ব দিচ্ছে। ইতোমধ্যে ১১৫ আসনে প্রা
জামায়াতের টাকায় সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের জাল বুনছেন সিনহা

জামায়াতের টাকায় সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের জাল বুনছেন সিনহা

প্রাইম ডেস্ক : বিদেশে অর্থপাচার, আর্থিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও নৈতিক স্খলনসহ ১১টি অভিযোগ রয়েছে সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বিরুদ্ধে। এজন্য সুপ্রিম কোর্টের পাঁচজন বিচারপতি তার সঙ্গে একই বেঞ্চে বসতে পর্যন্ত চাননি। এবার সেই দুর্নীতিবাজ সিনহা জামায়াতের টাকায় সরকারের বিরুদ্ধে বই লিখেছেন বলে জানা গেছে। জানা যায়, তার লেখা বইটি গত ১৬ সেপ্টেম্বর অ্যামাজনে উন্মুক্ত করার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে বইটি প্রকাশের নেপথ্যের সব খোঁজ খবর নিতে শুরু করেছে গোয়েন্দা সংস্থা। সূত্র বলছে, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন স্বাধীনতার পক্ষের সরকারের বিরুদ্ধে অবশেষে ষড়যন্ত্রের ঝাঁপি খুলে দেয়ার অঙ্গিকার করেছেন সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা (এস কে সিনহা)। সুরেন্দ্র কুমার সিনহার লেখা বইটির নাম- ‘এ ব্রোকেন ড্রিম: রুল অব ল’, হিউম্যান রাইটস এ্
শিশুদের পঙ্গু করে ভিক্ষাবৃত্তিতে ব্যবহার করত মাফিয়া চক্র

শিশুদের পঙ্গু করে ভিক্ষাবৃত্তিতে ব্যবহার করত মাফিয়া চক্র

প্রাইম ডেস্ক : ‘শিশুদের পঙ্গু করে নামানো হচ্ছে ভিক্ষায়’ শিরোনামে দেশের একটি পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ায় দেশব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়েছে। ২০১০ সালের ৩০ ডিসেম্বর ছাপানো সেই প্রতিবেদনে দাবি করা হয় যে রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় পরিচালিত কিছু মাফিয়া ও দেশিও সন্ত্রাসীদের সরাসরি মদদে অবুঝ শিশুদের অপহরণ করে কৃত্তিম উপায়ে অঙ্গহানী ঘটিয়ে জোরপূর্বক ভিক্ষাবৃত্তিতে ব্যবহার করা হচ্ছে। বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে এই সামাজিক ব্যাধি তীব্রতর হয়ে ওঠে। বাংলাদেশকে গরীব ও ফকিরের দেশ হিসেবে উপস্থাপন করে বিদেশি সাহায্য হজম করার জন্য এই পাঁয়তারায় মত্ত হয় বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আশীর্বাদপ্রাপ্ত মাফিয়া চক্রের কিছু সদস্যরা। প্রশ্ন উঠে, এতো এতো বাচ্চা-শিশু ওই মাফিয়া গ্রুপগুলোর হাতে কোত্থেকে আসে? বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করা দেখা গেছে, বিগত বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে অর্থাৎ ২০০১-২০০৬ সাল পর্যন্ত সারা দেশে হঠ