লাইফস্টাইল

কালো জাম খেলে যেসব রোগ থেকে মুক্তি মিলবে

কালো জাম খেলে যেসব রোগ থেকে মুক্তি মিলবে

প্রাইম ডেস্ক : কালোজাম গ্রীষ্মকালের একটি জনপ্রিয় ফল। জাম বিভিন্ন ধরণের পুষ্টি উপাদানে সমৃদ্ধ এবং স্বাস্থ্যের জন্যও অনেক উপকারী। জাম খাওয়াও খুব সহজ কারণ এর খোসা ছারাতে হয়না। এর মিষ্টি রসালো স্বাদ ছোটদের খুব প্রিয়। ত্বক, চুল ও সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্যই উপকারী জাম। জামের কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতার কথা জেনে নিই চলুন। ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়: ঐতিহ্যগতভাবেই জাম ডায়াবেটিসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। জামের গ্লিসামিক ইনডেক্স কম হওয়ায় এটি ডায়াবেটিসের জন্য ভালো বলে বৈজ্ঞানিকভাবেও প্রমাণিত। কমপ্লিমেন্ট থার মেড এ প্রকাশিত একটি গবেষণা পর্যালোচনায় জানা যায় যে, জামের ডায়াবেটিক বিরোধী গুণ আছে। অন্য একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে জামের বীচি রক্তের সুগার লেভেল ৩০% পর্যন্ত কমাতে সাহায্য করে। এই ফলটি ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে: জামে প্রচুর পরিমাণে পুষ্ট
বৃষ্টিতে বাড়ির মশা তাড়াবেন যেভাবে

বৃষ্টিতে বাড়ির মশা তাড়াবেন যেভাবে

প্রাইম ডেস্ক : চলে এসেছে বর্ষা ঋতু। বাইরে অবিরাম বৃষ্টিতে গরম থেকে রেহাই পাওয়া যাবে ঠিকই কিন্তু অন্য একটি সমস্যা বেড়ে যায় এই সময়ে। আর তা হলো মশা। এক যন্ত্রণাদায়ক পতঙ্গের নাম। মশার যন্ত্রণা কোথায় নেই! ঘরে, বাহিরে, গাড়িতে, সন্ধ্যায় একটু হাঁটতে যাবেন সেই রাস্তায়ও মশা। বিরক্তিকর উপদ্রবের পাশাপাশি এটি রোগজীবাণু সংক্রামণ করে। এই মশা অনেক সময় মানুষের মৃত্যুর কারণ হতে পারে। মশার মাধ্যমে চিকুনগুনিয়া, ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু, ফাইলেরিয়া, পীত জ্বর, জিকা ভাইরাস প্রভৃতি মারাত্মক রোগ সংক্রমিত হয়ে থাকে। আর বর্ষা আসতে না আসতেই ডেঙ্গু জ্বরের পরিমাণ অনেক বেড়ে গেছে। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে মশা তাড়ানোর ব্যবস্থা করা জরুরি। কারণ মশা তাড়ানোর ওষুধ শরীরের জন্য মোটেও ভাল নয়। তাই জেনে নিন মশা তাড়ানোর কার্যকরী উপায়। নিম তেল শরীরে লাগিয়ে নিলে মশার কামড় থেকে রেহাই পাবেন। নিমের গন্ধে মশা দূর
২০১ গম্বুজ মসজিদ দেখতে দর্শনার্থীদের ভিড়

২০১ গম্বুজ মসজিদ দেখতে দর্শনার্থীদের ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক : ৩০১ ফুট উচ্চতার ২০১ গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদ দেখতে বিভিন্ন স্থান থেকে দর্শনার্থীদের ভিড় বেড়েই চলেছে।দর্শনার্থীদের চাপ সামলাতে স্থানীয় প্রশাসন হিমশিম খাচ্ছে। ঈদকে কেন্দ্র করে দর্শনার্থীদের ভিড় ক্রমে বেড়েই চলেছে বলে মসজিদের উদ্যাক্তারা জানিয়েছেন। শুক্রবার মসজিদ এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার দর্শনার্থী এসেছেন দৃষ্টি নন্দন এই মসজিদ দেখার জন্য। মসজিদটি টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার ঝাওয়াইল এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চল দক্ষিণ পাথালিয়া গ্রামে নির্মিত হচ্ছে। দক্ষিণ পাথালিয়া গ্রামের মো. মেছের আলীর ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রফিকুল ইসলাম মিনার নিজ উদ্যোগে ১৫ একর জমির ওপর ৩০১ ফুট উচ্চতায় ২০১ গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদটি নির্মাণ করছেন। মসজিদে এক সঙ্গে ৩০-৪০ হাজার মুসুল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রফিকুল ইসলাম মিনারের ভাগিনা মো. মহসীন মিয়া জানান, বীর ম
কী ধরণের পুরুষ পছন্দ বাংলাদেশের মেয়েদের?

কী ধরণের পুরুষ পছন্দ বাংলাদেশের মেয়েদের?

প্রাইম ডেস্ক : গল্প, কবিতা বা সাহিত্যে একজন পুরুষের দৃষ্টিতে নারীর সৌন্দর্যের বর্ণনা নানাভাবে উঠে এসেছে। কিন্তু এর উল্টোটা অর্থাৎ নারীর চোখে পুরুষের কোন বিষয়গুলো আকর্ষণীয় সেই ব্যাখ্যা এসেছে খুবই কম।তার মানে এই নয় যে, পুরুষকে বেছে নেয়ার ক্ষেত্রে নারীদের কোন পছন্দ-অপছন্দ নেই। সেটা অবশ্যই একেকজনের ক্ষেত্রে একেকরকম। যেমন পেশায় চিকিৎসক ডা. শামসুন্নাহার বীথির কাছে পুরুষের সৌন্দর্য মানেই তার পরিচ্ছন্নতা, সেটা হোক শরীরের বা মনের।"আমি যখন মেডিকেলে পড়তাম তখন আমাকে এক বড় ভাই খুব পছন্দ করতেন। তিনি দেখতেও বেশ সুন্দর ছিলেন।কিন্তু আমি তাকে নিয়ে কখনও কিছু ওভাবে ভাবতে পারিনি। কারণ তিনি কখনও সুগন্ধি ব্যবহার করতেন না, যা ছিল তার খুব প্রয়োজন।""আমার কাছে শরীর ও মন দুটোর পরিচ্ছন্নতাই এক ধরণের সুন্দর্য। সেটা ছেলে মেয়ে সবার ক্ষেত্রে। আর আমার একটা অদ্ভূত পছন্দ আছে আর সেটা হল আমি কাঁচা পাকা চুলের ছেল
এক সঙ্গে দু’জনকে ভালোবাসা সম্ভব!

এক সঙ্গে দু’জনকে ভালোবাসা সম্ভব!

প্রাইম ডেস্ক : প্রেম মানেই নাকি মনে শুধু একজনের আধিপত্য। একাধিক ব্যক্তি মনে ঠাঁই পেলেই সামাজের চোখ রাঙানি, হাজারো জবাবদিহিতা, চরিত্র নিয়ে কাটাছেঁড়া। কিন্তু সত্যিই কি এটা অন্যায়? আর একসাথে দুজনকে মনে কি ঠাঁই দেওয়া যায়। এমন প্রশ্ন অনেকের মনেই নিজের অজান্তেই চলে আসে। দেশ-বিদেশের নানা সমীক্ষা বলছে, বেশির ভাগ মানুষের মনেই ঘাপটি মেরে থাকে অন্য আর একজনের প্রতি টান। সেই টানে কেউ কেউ সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ান, কেউ বা সমাজের ভয়ে ঢোঁক গেলেন ওখানেই। কিন্তু কেন এমন হয়? মনোবিজ্ঞানের মতে, প্রত্যেকটি মানুষই বিভিন্ন পৃথক বৈশিষ্ট্যযুক্ত হন। এক জন মানুষের মধ্যে সবটুকু পছন্দের বৈশিষ্ট্য যে মিলবেই, এমন নয়। তাই ভাল লাগার কোনও গুণ বা স্বভাব থেকে প্রেম বা ভালবাসার অনুভূতি দু’জনের প্রতিই জন্মাতে পারে। পিটুইটারি গ্রন্থি ও ফিল গুড হরমোনরাই এর জন্য দায়ী। এ প্রসঙ্গে মনোবিদ অনুত্তমা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতে, ‘‘জন্মে
এশিয়ার প্রথম সমকামী বিয়ে!

এশিয়ার প্রথম সমকামী বিয়ে!

প্রাইম ডেস্ক : এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে সমকামীদের বিয়ের স্বীকৃতি দিয়েছে তাইওয়ান। আইন কার্যকরের প্রথম দিনে বিয়ে করেই ঐতিহাসিক এ দিনটি উদযাপন করেছেন কয়েকশ সমকামী যুগল। বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, রাজধানী তাইপের একটি বিবাহ নিবন্ধন কেন্দ্রে কয়েকশ’ সমকামী যুগল প্রথম দিন অর্থাৎ শুক্রবারই বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। প্রায় তিন দশকের লড়াইয়ের পর, গত সপ্তাহে বিয়ের আইনি স্বীকৃতি পায় তাইওয়ানের সমকামীরা। ফলে এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে সমকামীদের বিয়ের স্বীকৃতি দিল দেশটি।আদালতের স্বীকৃতি পাওয়ার পরই দেশটির বিববাহ নিবন্ধন কার্যালয়ে ভিড় করতে থাকে সমকামী যুগলরা। সাংবিধানিক আদালত এ বিষয়ে প্রাসঙ্গিক আইন প্রণয়নের জন্য সরকারকে দুই বছর সময় দিয়েছিল। আদালতের রায়ের পর বিভিন্ন গোষ্ঠির চাপের মুখে গণভোটের আয়োজন করেছিল সরকার। এ সময় অনেককেই সমকামীদের বিয়ের ব্যাপারে বিরোধিতা করতে দেখা গেছে।এক জর
রোজ এক কোয়া রসুন খেলে ৭ উপকার

রোজ এক কোয়া রসুন খেলে ৭ উপকার

প্রাইম ডেস্ক : সুস্থ থাকতে রোজ খান এক কোয়া কাঁচা রসুন। সকালে খালি পেটে খেতে হবে এমন নয়৷ বিকেল–দুপুর বা রাতে খেতে পারেন৷ তবে খেতে হবে কাঁচা৷ সাধারণ রসুনেরই একটা কোয়া খেতে পারেন৷ তবে হাই প্রেশার বা কোলেস্টেরল থাকলে খান ৩–৪টি করে৷ এক্ষেত্রে প্রেশার বা কোলেস্টেরলের ওষুধ বন্ধ করবেন না৷ সঠিক খাবার, ব্যায়াম ও চেকআপ চালিয়ে যাবেন৷ খ্রিস্টপূর্ব ১৫০০ শতকে চিন ও ভারতে রক্ত পাতলা রাখার জন্য এর প্রচলন ছিল৷ আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের জনক হিপোক্রেটিস একে ব্যবহার করেছিলেন সারভাইকাল ক্যান্সারের চিকিৎসায়৷ লুই পাস্তুর এর অ্যান্টিফাংগাল ও অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল গুণের খবর জানান৷ সময়ের সঙ্গে আরও উপকারের কথা জানা গেছে৷ আর আধুনিক বিজ্ঞানীরা জানালেন, হৃদরোগ প্রতিরোধে এর ভূমিকার কথা৷ ইউনিভার্সিটি অব কানেক্টিকাট স্কুল অব মেডিসিন–এর কার্ডিওভাসকুলার রিসার্চ টিমের মতে, কাঁচা রসুন খেলে হার্ট অনেক বেশি সুস্থ
মর্গ থেকে উঠে রাতভর পার্টি করলো লাশ

মর্গ থেকে উঠে রাতভর পার্টি করলো লাশ

প্রাইম ডেস্ক : হাসপাতালের ডাক্তাররা মৃত ঘোষণার পরই মৃতদেহটির ঠাঁই হয় মর্গে।  কিন্তু এর পরই ঘটলো অলৌকিক ঘটনা।  মর্গের হিমাগার থেকে লাশ উঠে যোগ দিল পার্টিতে।  বিচিত্র এই ঘটনাটি ঘটেছে রাশিয়ায়। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য মিররের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন্ধুদের সঙ্গে পার্টি করতে গিয়ে মাত্রাতিরিক্ত ভদকা পান করেন এক ব্যক্তি।  পার্টি চলাকালীনই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।  তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যাওয়া এক হাসপাতালে।  ডাক্তাররা পরীক্ষা করে জানান, মারা গেছেন ওই ব্যক্তি।  পরে তার লাশ রাখা হয় লাশঘরে।পুলিশের মুখপাত্র আলেক্সে স্টোয়েভ জানান, স্থানীয় মর্গ সেদিন প্রায় লাশে ভর্তি ছিল।  এমনকি মর্গের মেঝে ও ফ্রিজাররুমেও ভর্তি ছিল লাশ।  আর সেখানেই ঘটে এই অলৌকিক ঘটনা।  অন্ধকার লাশঘরের ভিতরেই জীবন ফিরে পান ওই ব্যক্তি।  কীভাবে এই ঘটনা ঘটে তা নিয়ে এখনও দ্বিধায় চিকিৎসকরা।তাদের অনুমান, মাত্রাতিরিক্ত অ্য
ফুলে ফুলে শোভিত নাগলিঙ্গম

ফুলে ফুলে শোভিত নাগলিঙ্গম

আ. আজিজ : গাজীপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের প্রবেশ করলেই আপনাকে স্বাগত জানাবে কালের স্বাক্ষী নাগলিঙ্গম গাছ। গত বেশ কিছুদিন ধরেই গাছটিতে ফুঁটছে ফুল। বর্তমানে ফুলের শোভায় ও ঘ্রাণে মুখরিত হয়ে উঠছে গোটা এলাকা। নাগলিঙ্গমের আদি নিবাস ছিল মধ্য ও দক্ষিন আমেরিকার বনাঞ্চল। বাংলাদেশে এই গাছটি বর্তমানে বিলুপ্তের তালিকায় থাকলেও হাতে গোনা কয়েকটি গাছের দেখা মেলে এখনও। এর মধ্যে গাজীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এই বৃক্ষটিও অন্যতম। বছরের গ্রীস্ম কালে এই গাছের ফুল ফোঁটে। অন্যান্য গাছে শাখায় ফুল ফোটলেও এই গাছের ফুল কান্ড ছিড়ে ছড়ার মত বের হয়। গাছের ফুলটিই হয়ে উঠে এর মূল আকর্ষণ। ফুল গুলো দেখতে অনেকটা সাপের ফনার মত তাই এর নাম হয়েছে নাগলিঙ্গম। ফুলগুলো সৌরভের জন্যও বিখ্যাত। এর পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় ফুলের তীব্র ঘ্রাণ আপনাকে কাছে টানবেই। বিরল প্রজাতির এই ফুলের সৌরভে রয়েছে গোলাপ ও পদ্মের মিশ্রণ। নাগলিঙ্গম গাছ সাধারণ
শিশুদের সাথেই ফাহাদের ছুটে চলা

শিশুদের সাথেই ফাহাদের ছুটে চলা

আব্দুল আজিজ : তরুণ উদ্যোমী যুবক ফাহাদ আকন্দ। যে সময়টায় লেখাপড়া শেষ করে নিজের ভবিষ্যতের ভাবনায় থাকার কথা, সেখানে সে ব্যতিক্রম। এখন তার কাজ লেখাপড়ার ফাঁকে অবসর সময়ে এলাকার শিশু ও কিশোরদের সংগঠিত করে শারীরিক কসরতে ব্যস্ত রাখা। তার উদ্দেশ্য শিশু কিশোরদের নানা ধরনের অপসংস্কৃতি থেকে বিরত রাখা। এ পর্যন্ত তার একাজে গত দেড় বছরে প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। এখন তিনি পাচ্ছেন অভিভাবকদের বাহবা। গাজীপুরের শ্রীপুরের বেরাইদেরচালা গ্রামের আবু ছাইদের ছেলে ফাহাদ আকন্দ। ২০১৬ সালে বরিশালের শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত টেক্সটাইল কলেজ থেকে টেক্সটাইলের উপর বিএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। বাবার ইচ্ছে ছিল ছেলে ভালো চাকুরী করবে। ভালো বেতনের চাকুরীও জুটেছিল। কিন্তু সেসময় ফাহাদের মনে জাগে ভিন্ন চিন্তা, তিনি দেখতে পান আশপাশের বিভিন্ন বাসাবাড়ির শিশু কিশোররা বিদ্যালয়ের পাঠদানের সময়ের বাহিরে যখন বাসায় থাকে, তখন অধিকাং