লাইফস্টাইল

শীতে ত্বকের যত্নে ২২ টিপস

শীতে ত্বকের যত্নে ২২ টিপস

প্রাইম ডেস্ক : শীতে আমাদের সবার ত্বক শুষ্ক হয় যার ফলে ত্বক চুলকোয় (itching), চামড়া উঠতে পারে (skin peeling), ত্বক ফাটতে (cracked skin) পারে। এ সব থেকে কালো দাগ হতে পারে এবং ইনফেকশনও হতে পারে। তাই শীতকালে সুস্থ ত্বকের জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলা উচিত। শীতে শুষ্ক ত্বক আরও শুষ্ক হতে পারে এবং তৈলাক্ত ত্বক শীতে শুষ্ক হতে পারে। আবার একই ত্বকে দু’ রকমের স্কিন টাইপ অর্থাৎ শুষ্ক এবং তৈলাক্ত, দুটোই হতে পারে। এটাকে আমরা ‘combination skin type’ বলে থাকি। কম্বিনেশন ত্বকে T-zone অর্থাৎ কপাল এবং নাক তৈলাক্ত হয় কিন্তু মুখের বাকি অংশ শুষ্ক হয়। শীতকালে সাধারণত, শুষ্ক (Dry skin) ত্বক এবং ‘combination skin’ ত্বক বেশি দেখা যায় আমাদের দেশে। নিম্ন লিখিত টিপস শীতকালের শুষ্ক ত্বকের জন্য: ১. দীর্ঘ সময় নিয়ে গরম পানি দিয়ে গোসল করা যাবে না। শীতকালে কুসুম গরম পানি দিয়ে শরীর ও ত্বক মুছবেন ও ধুবেন। ধোবার পর পর
আত্মপ্রেমিকরা অন্যদের চেয়ে বেশি সুখী হয়

আত্মপ্রেমিকরা অন্যদের চেয়ে বেশি সুখী হয়

প্রাইম ডেস্ক : আত্মপ্রেমিক বা ‘নার্সিসিস্টদের’ সম্পর্কে সমাজের মানুষের মধ্যে সব সময়ই একধরনের নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি কাজ করে। আত্মকেন্দ্রিক স্বভাবের কারণে তাদের সমালোচনাটাও একটু বেশিই হয়। আত্মপ্রেমিকদের মধ্যে শ্রেষ্ঠত্ববোধ বেশি কাজ করে। তাদের লজ্জাও অন্যদের থেকে কম হয়। এতো এতো সমালোচনার পরও মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, আত্মপ্রেমিক বা নার্সিসিস্টরা অন্যদের চেয়ে তুলনামূলকভাবে বেশি সুখী হয়। কুইন্স ইউনিভার্সিটির বেলফাস্টে চলমান এক গবেষণার ফলাফলে এ কথা বলা হয়েছে। গবেষণায় আরো বলা হয়েছে, এ ধরনের মানুষ সাধারণত মানসিক চাপে কম ভোগে। মনোবিদ ডা. কোস্টাস পাপাজর্জিও বলেন, নার্সিসিজমের প্রতি নেতিবাচকতার কারণে নার্সিসিস্টরা নিজেরা যে সুবিধা ভোগ করে, তা অনেক ক্ষেত্রে ঢাকা পড়ে যেতে পারে। গবেষকেরা বোঝার চেষ্টা করছেন, সামাজিকভাবে বিষাক্ত হলেও আধুনিক সমাজ, রাজনীতি, সামাজিক মাধ্যম ও সেলিব্রেটি সংস্কৃতিতে কেন এই ন
ঠোঁট গোলাপ পাপড়ি করার ঘরোয়া উপায়

ঠোঁট গোলাপ পাপড়ি করার ঘরোয়া উপায়

প্রাইম ডেস্ক : ঝকঝকে মুখে ফাটা ঠোঁট ভীষণভাবে চোখে পড়ে। তাই মুখের মতোই ঠোঁটের যত্ন নেয়া প্রয়োজন। ঠোঁটের যত্ন নিতে আমন্ড অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। আমন্ড অয়েল নিয়ে ঠোঁটে মাসাজ করুন। উপকার পাবেন। কীভাবে ব্যবহার করবেন? উপকারণ ৫০ গ্রাম মধু, ২০ গ্রাম বা ৪ চা-চামচ চিনি, ৫ মিলি গোলাপ জল ও ৫ মিলি ভ্যানিলা এসেন্স। কীভাবে বানাবেন সব উপকরণ একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন। প্রতিদিন একবার ঠোঁটের মরা কোষ তুলতে স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করুন।. মধু ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখে প্রাকৃতিকভাবেই। চিনি মরা কোষ সরিয়ে ঠোঁটকে করে নরম ও মোলায়েম। আর এ দুই উপকরণ একসঙ্গে হলে ঠোঁট গুলাবি আপনা থেকেই! ঠোঁটের কালচে ভাব কমাতে তিন চামচ করে নিচে বলা উপকরণ মিশিয়ে বোতলে ভরে রাখুন রোজের ব্যবহারের জন্য- নারিকেল তেল ও আমন্ড অয়েল। কীভাবে ব্যবহার করবেন লিপ বামের বদলে এই মিশ্রণ সারা দিনে বেশ কয়েকবার
একঝাঁক নগ্ন যুবক-যুবতীর কাণ্ড

একঝাঁক নগ্ন যুবক-যুবতীর কাণ্ড

প্রাইম ডেস্ক : ইউনিভার্সিটি অব সিডনির স্কুল অব ভেটেরিনারি সায়েন্সের তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষের ছাত্রছাত্রী তারা। সংখ্যায় প্রায় ৩০ জন। তারা ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন। একে একে পোশাক খুললেন। খুললেন তো খুললেনই। শরীরে সুতা বলতে অবশিষ্ট কিছুই থাকলো না। একেবারে নগ্ন অবস্থায় নানা রকম অঙ্গভঙ্গিতে দাঁড়ালেন তারা। একই সঙ্গে যুবক-যুবতী এমন অবস্থায় দাঁড়াতেই ক্যামেরা ক্লিক ক্লিক শব্দ করে উঠল। ব্যাস, বন্দি হয়ে গেলেন ফ্রেমে। একটি দুটি নয়, অনেক ছবি। এসব ছবি ব্যবহার করা হবে ২০২০ সালের জন্য নতুন ক্যালেন্ডারে। তা থেকে যে আয় হবে তা দান করা হবে মানসিক স্বাস্থ্যকে উন্নত করার সমর্থনে প্রচারণা চালানো দাতব্য সংস্থা ব্লাক ডগ ইন্সটিটিউটে। এর আয়োজক লুসি ফুচটার (২৩) বলেন, আমাদের স্কুলের শিক্ষার্থীদের কাছে এমন পোজ দিয়ে ক্যালেন্ডার প্রকাশ একটি রীতিতে পরিণত হয়েছে। আমরা শিগগিরই ভেটেরিনারিয়ান হয়ে উঠবো। বিজ্ঞানী হয়ে উঠব। আমাদ
টয়লেটে মোবাইল ব্যবহার করলেই হবে পাইলস!

টয়লেটে মোবাইল ব্যবহার করলেই হবে পাইলস!

প্রাইম ডেস্ক : অনেকে অস্বীকার করলেও এটাই বাস্তব যে অনেকেই টয়লেটে বসে মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। সম্প্রতি এক গবেষণায়ও দেখা গেছে, ৫৭ শতাংশ ব্রিটিশই টয়লেটে মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন এবং ৮ শতাংশ বলেছেন তারা সর্বদাই ব্যবহার করেন। তবে চিকিৎসকরা বলছেন, কেউ যদি টয়লেটে মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। তবে তা ওই ব্যক্তির জন্য ভয়ংকর পরিণতি নিয়ে আসতে পারে। কারণ এই কারণে তার পাইলসে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কা অনেকাংশেই বেড়ে যায়। পেসেন্ট ডট ইনফোর ক্লিনিক্যাল ডিরেক্টর ডা. সারা জার্ভিস বলেন, মোবাইল ফোন ব্যবহার করার কারণে আপনি বেশি সময় ধরে টয়লেটে অবস্থান করেন যেই কারণে আপনি পাইলসে আক্রান্ত হতে পারেন। আপনি টয়লেটে যত বেশি সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন ততো বেশি সময় আপনি সেখানে অবস্থান করবেন। এই কারণে শিরা ও মলদ্বারে চাপ বৃদ্ধি পায় যা পাইলসের অন্যতম কারণ। এই পাইলসে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কা কমাতে টয়লেটে মোবাইল ফোন ব্যবহ
বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা পেলো সোনারগাঁ

বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা পেলো সোনারগাঁ

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলাকে বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা দিলো বিশ্ব কারুশিল্প পরিষদ (ডব্লিউসিস)। জামদানি শিল্পের পীঠস্থান হিসেবে সোনারগাঁয়ের সুনাম ও কৃতিত্ব বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠিত হবার সঙ্গে উন্মোচিত হলো ক্রিয়েটিভ ট্যুরিজমের দ্বার। গতকাল শুক্রবার সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার অঞ্জন কুমার সরকার এ সংক্রান্ত একটি চিঠি গ্রহণ করেন। জানা যায়, বিশ্ব কারুশিল্প পরিষদের (ডব্লিউসিসি) কাছে সোনারগাঁকে কারুশিল্প শহরের মর্যাদা দিতে বাংলাদেশ কারুশিল্প ফাউন্ডেশন ও জামদানি উৎসবের আয়োজক বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়। গত সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে ডব্লিউসিসির বিচারক দল সোনারগাঁ ঘুরে যান। এরপর জামদানি ও তাঁতশিল্পের জন্য সোনারগাঁকে বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা দেওয়ার চিঠি পাওয়া যায়। এর মধ্য দিয়ে এই প্রথম বাংলাদেশের কোনো স্থান বিশ্ব কারুশিল্প শহরের মর্যাদা লাভ
যাদের বোন আছে তারা ভাগ্যবান: গবেষণা

যাদের বোন আছে তারা ভাগ্যবান: গবেষণা

প্রাইম ডেস্ক : যৌথ পরিবার এখন আর আগের মতো দেখা যায় না। যৌথ পরিবারগুলো ভেঙে এখন ছোট পরিবার গড়ে উঠছে। এখন ছোট পরিবারগুলোতে দুটো শিশুর বেশি দেয়া যায় না। তাই পরবর্তী প্রজন্ম বেড়ে উঠছে অনেকটা নিঃসঙ্গতাকে সঙ্গী করে। আবার অনেকে একটি সন্তানের বেশি নিতে চান না। ভাইবোনের খুনসুটি, খেলনা,এক সঙ্গে খাবার এখন আর খুব একটা দেখা যায় না। এছাড়া আমাদের দেশে এখানো কিছু মানুষ আছে যারা কন্যা শিশু জন্ম নিলে মন খাবার করে। আর তাদের ভবিষ্যতের বিপদ মনে করে।মনে রাখবেন কন্যা সন্তান বিপদ না নয়, ঘরের আলো। ভাই বা বোনের সঙ্গে বেড়ে ওঠা একটি শিশুর জীবনে অত্যন্ত আনন্দদায়ক বলে জানাচ্ছে গবেষণা। গবেষণা বলছে, যাদের বোন আছে তারা ভাগ্যবান। ৩৯৫টি পরিবারের ওপর সমীক্ষা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে এসেছেন ব্রিংহাম ইয়ং ইউনিভার্সিটির গবেষকরা। বিজ্ঞানীরা বলছেন, ছেলে হোক বা মেয়ে, তার যদি একটি বোন থাকে তো সেই জীবনের আনন্দই আলাদা। তা
ফ্যাশন আইকন হয়ে উঠছেন রাকিব বাবু

ফ্যাশন আইকন হয়ে উঠছেন রাকিব বাবু

তরুন ফ্যাশন ডিজাইনার রাকিব বাবু খুব দ্রুত ফ্যাশন এর আইকন হয়ে উঠে। তিনি তার মেধা দিয়ে ও ভক্তদের ভালবাসায় আজ ফ্যাশন আইকন রাকিব বাবু। তার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেন আমাদের সাথে। আমার ব্যাস্ততা হচ্ছে কিছু ব্রান্ডের শুট করছি। আর আমাদের বাংলাদেশে প্রায় উৎসব হয়। ফ্যাশন হাউস গুলোর ফটো শুট হচ্ছে সাথে আমি যেহেতু স্টাইলিং করছি তাদের সাথে আমাকেও ব্যাস্ত থাকতে হচ্ছে। ফ্যাশন হাউস এর সব কিছু আমাকে দেখতে হচ্ছে মডেল সিলেকশন ও মেকাপ, হেয়ার স্টাইল নিয়ে শুট এর আগে আমাকে পুরো সপ্তাহ ব্যাস্ত থাকতে হচ্ছে।বড় বড় ব্রান্ডের স্টাইলিং কাজ করছেন এ ব্যাপারে বলেন??? কিছু সিলেক্টেড ব্রান্ডের কাজ করি। একটা জুয়েলারি ব্রান্ডের নিয়মিত কাজ করছি। তার সাথে বেশ কিছু ব্রান্ডের কাজ করছি সেগুলোর মডেল সিলেকশন সহ (এ টু জেড) দেখতে হচ্ছে।আপনার ইন্টারন্যাশনাল কিছু কাজ দেখতে পাচ্ছি আমরা সে গুলোর সম্পর্কে একটু বলেন???? আমার প্
রক্ত পরীক্ষায় জানা যাবে মৃত্যুর দিনক্ষণ!

রক্ত পরীক্ষায় জানা যাবে মৃত্যুর দিনক্ষণ!

প্রাইম ডেস্ক : মানুষের মৃত্যু কখন-কোন সময় হবে তার যেমন দিনক্ষণ নেই, তেমনি নেই আগাম কোনো পূর্বাভাস। তবে মানুষ যদি তার মৃত্যুর আগাম পূর্বাভাস জানতে পারতো তাহলে সবচেয়ে ভালো হতো। সেই চিন্তা থেকেই জার্মানির বিজ্ঞানীরা মানুষের মৃত্যুর এক ধরনের আগাম পূর্বাভাসের কথা জানিয়েছেন। আর সেটি জানা যাবে রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে। বিজ্ঞানীদের দাবি, এই পরীক্ষায় আগামী ১০ বছরের মধ্যে কারও মৃত্যু ঝুঁকি আছে কিনা এ বিষয়ে জানা যাবে। এ গবেষণার ফল শতকরা ৮০ ভাগ নির্ভুল বলেও দাবি করেন তারা। ডেইলি মেইলের এক খবরে বলা হয়েছে, দেশটির বিজ্ঞানীরা ৪৪ হাজার মানুষের ওপর এ পরীক্ষা চালিয়েছেন। তারা রক্তের ১৪টি বায়োমার্কার উদঘাটন করেছেন, যা মানুষের মৃত্যু ঝুঁকিকে প্রভাবিত করে। বায়োমার্কারগুলো সংক্রমণমুক্ত এবং গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে চর্বি এবং শরীরের প্রদাহ সম্পর্কিত সবকিছুর সঙ্গে যুক্ত। একটি বায়োমার্কারের পরীক্ষায় দেখা
যেমন রাজা তেমন প্রজা

যেমন রাজা তেমন প্রজা

তসলিমা নাসরিন : নেতাদের দেখে জনগণ শেখে। নেতারা মিথ্যে কথা বললে জনগণও মিথ্যে বলতে শেখে। ভালো মানুষও নেতা বনে গেলে খারাপ হয়ে যায়। সৎলোকও রাজনীতি করতে গিয়ে অসৎ হয়ে যায়। ধর্মীয় নেতারা মগজ ধোলাই করেন, রাজনীতিক নেতা, যাঁরা ধর্মকে রাজনীতির সঙ্গী করেন, তারাও মগজধোলাইয়ে কম যান না। ধর্মীয় নেতারা মানুষকে পরকালের নরক-বাসের ভয় দেখান। রাজনৈতিক নেতারা ইহকালের জেল-জরিমানার ভয় দেখান। বাংলাদেশে নতুন একটি ভয় শুরু হয়েছে। যে নেতারা দেশ চালাচ্ছেন, তাঁরা ‘ক্রস ফায়ার’ নামে একটা শাস্তি আবিষ্কার করেছেন। এই ক্রস ফায়ার শাস্তিটি যাকে খুশি তাকে দিতে পারবেন নেতারা। নিজেরাই মিডিয়ার রিপোর্ট পড়ে বা টুইটার ফেসবুকের মন্তব্য পড়ে বা লোক মুখে শুনে বা গুজবে কান দিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেবেন, কে দোষী। তারপর তাকে বাড়ি থেকে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে গুলি করে মেরে ফেলবেন, মিডিয়াকে বলে দেবেন, ক্রস ফায়ারে মৃত্যু হয়েছে, মিডিয়াও নিজ স্বার্থে সরক