শিক্ষাঙ্গন

প্রাথমিক সমাপনীতে এমসিকিউ থাকছে না: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী

প্রাথমিক সমাপনীতে এমসিকিউ থাকছে না: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : চলতি বছর থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় বহু নির্বাচনী প্রশ্ন (এমসিকিউ) বাদ দিয়ে শতভাগ যোগ্যতাভিত্তিক বা সৃজনশীল প্রশ্ন রাখা হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীর বৃত্তির ফল প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এ কথা জানিয়েছেন। গণশিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় প্রাথমিক সমাপনীতে এমসিকিউ রাখছি না। প্রশ্নের উত্তর লিখতে হবে। প্রশ্নফাঁস এড়াতেই গুণীদের পরামর্শে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিলেবাস থেকেই প্রশ্ন লিখতে হবে শিক্ষার্থীদের।’ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের সময় যে ঘটনাগুলো ঘটেছিল বা সেগুলো নিয়ে জ্ঞানী-গুণী-বিদগ্ধদের মধ্যে যে আলোচনা হয়েছে, আমরা বিভিন্ন আলোচনার মধ্যদিয়ে অনেক পরামর্শ পেয়েছি। সাধারণ মানুষ থে
গোপনে চলছে প্রশ্ন ফাঁস রোধ অভিযান

গোপনে চলছে প্রশ্ন ফাঁস রোধ অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক  : সরকারের সকল শক্তি ও সামর্থ্য নিয়োগ করার পরেও প্রশ্ন ফাঁস রোধ সম্ভব নয় যদি না দেশের সচেতন নাগরিক প্রশ্ন ফাঁসের মত ভয়াবহ ব্যাধি থেকে জাতিকে মুক্ত করতে পারে। আর এর জন্য সরকারের গোপন কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষিত তরুণ সমাজ, শিক্ষাবিদ, শিক্ষকমহল ও সাধারণ জনগণের অংশগ্রনে প্রশ্ন ফাঁস রোধে গড়ে উঠছে গোপন কমিটি। এছাড়া আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গোপনে চালাচ্ছে সাঁড়াশি অভিযান। প্রশ্ন ফাঁসের সাথে স্কুল কলেজ ও কোচিং সেন্টারের জড়িত থাকার প্রমান মিলেছে বহুবার। তাই ছদ্মবেশে সন্দেহভাজন প্রতিষ্ঠানসমূহে অভিযান কার্যক্রম পরিচালনা করছে প্রশাসন। এছাড়া পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে মোবাইল ব্যাংকিয়ের মাধ্যমে কোনো নম্বরে সন্দেহজনক লেনদেন হচ্ছে কি না তা খতিয়ে দেখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কে কড়া নির্দেশ দিয়েছে সরকার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁসের কোনো তৎপরতা চালানো হচ্ছে নাকি তা অতি গুরুত্বে
আজ থেকে দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে

আজ থেকে দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে

প্রাইম ডেস্ক : আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।আজ বৃহস্পতিবার থেকে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হবে। পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। পরীক্ষার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার সময় কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আগামী ২ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। শেষ হবে ১৪ মে। পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের সাথে কোচিং সেন্টারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে মনে করে শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা। এর আগে গত এসএসসি পরীক্ষার ৭ দিন পূর্বে সকল কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছিল শিক্ষামন্ত্রণালয়। কিন্তু ওই নির্দেশনা বেশিরভাগ কোচিং সেন্টারই মানেনি।
এইচএসসি: পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নের সেট নির্ধারণ

এইচএসসি: পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নের সেট নির্ধারণ

নিজস্ব প্রতিবেদক  : প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে লটারির মাধ্যমে প্রশ্নপত্রের সেট নির্ধারণ করা হবে। রবিবার সচিবালয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন  এক সভায় এ কথা জানান। তিনি বলেন, পরীক্ষার ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নের সেট নির্ধারিত হবে, লটারির মাধ্যমে ঢাকা বোর্ড সেট নির্ধারণ করবে। এসএসসির মত এইচএসসিতেও পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলকভাবে পরীক্ষার হলে বসতে হবে। এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে ২ এপ্রিল, তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলবে ১৩ মে পর্যন্ত।
নতুন পদ্ধতিতে এসএসসি পরীক্ষা

নতুন পদ্ধতিতে এসএসসি পরীক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক  : আগামী বছর এসএসসি পরীক্ষা নতুন প্রশ্নপত্র ও নতুন পদ্ধতিতে নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত আন্তমন্ত্রণালয়ের সভায় এ উদ্যোগের কথা জানানো হয়। সভা শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইন সাংবাদিকদের বলেন, আমরা আশা করছি, আগামী বছর থেকে এসএসসি পরীক্ষা নতুন পদ্ধতিতে নিতে পারব। সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও বিভিন্ন সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সচিব বলেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি আগে থেকেই এমসিকিউ বন্ধের বিষয়ে বলে আসছেন। প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে বলার পর এটা এখন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করা হবে।
এসএসসি’র প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে কমিটি

এসএসসি’র প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে কমিটি

চলতি এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার একটি বিষয়ের সম্পূর্ণ এবং কয়েকটির আংশিক প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ মিলেছে বলে সেই সব পরীক্ষা বাতিলের সুপারিশ করতে যাচ্ছে এই সংক্রান্ত কমিটি। রোববার সচিবালয়ের সম্মেলন কক্ষে বৈঠক শেষে কমিটির আহ্বায়ক কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর সাংবাদিকদের একথা জানান। তিনি বলেন, ‘একটি বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ পেয়েছি। কোন বিষয় সেটা এখনই বলা যাবে না। আমরা আগামী ২৫ তারিখ মিটিং করে ২৬ তারিখে চূড়ান্ত যে সুপারিশ দেব সেখানে দেখতে পাবেন।’ সচিব বলেন, ‌‘প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে পত্র-পত্রিকায় যেসব রিপোর্ট এসেছে এসব আমরা মিলিয়ে দেখছি। একই সঙ্গে ফাঁসের সময়ের বিষয়টিও আমরা মিলিয়ে দেখব। সুপারিশে থাকবে প্রশ্ন ফাঁসের সুবিধা কতজন পেয়েছে। কতক্ষণ আগে এবং কত নম্বরের প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে।’ অধিকাংশ বিষয়ের প্রশ্নই ফাঁস হয়েছে এটা আপনারা এখনো নিশ্চিত হতে পেরেছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে
বই পড়ে দেড় হাজার শিক্ষার্থীর পুরস্কার লাভ

বই পড়ে দেড় হাজার শিক্ষার্থীর পুরস্কার লাভ

প্রাইম ডেস্ক : বই পড়ে পুরস্কার জিতে নিয়েছে রাজশাহীর ১ হাজার ৪৪৬ জন শিক্ষার্থী। শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র তাদের পুরস্কৃত করে। রাজশাহী মহানগরের আওতায় পরিচালিত স্কুল পর্যায়ের বইপড়া কার্যক্রমের ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নেয়। রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রাঙ্গণে আয়োজিত এই পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের উপস্থিত ছিলেন কথাসাহিত্যিক, লেখক ও অধ্যাপক হাসান আজিজুল হক, রাজশাহী জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, রাজশাহী অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর ড. রীনা রানী দাস, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের নাটোর শাখার সংগঠক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক অলক মৈত্র, এভারেস্ট জয়ী এম.এ মুহিত, নারী এভারেস্ট জয়ী নিশাত মজুমদার, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ তাইফুর রহমান, গ্রামীণফোনের রাজশাহী সার্কেলের হ
প্রশ্নপত্র কেন্দ্রের বাইরে সরবরাহে শিক্ষক আটক

প্রশ্নপত্র কেন্দ্রের বাইরে সরবরাহে শিক্ষক আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক  : গাজীপুরের শ্রীপুরে পরীক্ষা শুরুর পর প্রশ্নপত্র কেন্দ্রের বাইরে সরবরাহ করার সময় এক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। সকাল ১০টা ৩০। এরই মধ্যে এমসিকিউ শেষ হয়েছে। মূল(লিখিত)প্রশ্নপত্র দেওয়ার জন্য কেন্দ্র সচিব প্রশ্ন নিয়ে রুমে রুমে দৌঁড়াচ্ছেন। ঠিক সেই মুহুর্তে একটি প্রশ্ন নিয়ে দায়িত্বে থাকা সহকারি কেন্দ্র সচিব মূল ফটক দিয়ে কেন্দ্রের বাহিরে গেলেন। গতিবিধি বুঝে পিছুন পিছুন অনুসরণ করতে লাগলেন এক পুলিশ সদস্য। এক পর্যায় কেন্দ্র থেকে অল্প দূরে ওই সচিবকে পকেট থেকে কিছু একটা বের করতে দেখেন। আস্তে আস্তে সচিবের কাছে একটি দোকানের পাশে অবস্থান করতে থাকেন ওই পুলিশ সদস্য। পরে কাছে গিয়ে ওই সচিবকে বলেন-‘আপনার পকেটে প্রশ্ন আছে,বের করেন!’ মুহুর্তেই ঘটনাস্থলে লোকজন জড়ো হতে থাকে। পরে পুলিশ ওই শিক্ষকের পকেট থেকে চলমান গণিত প্রশ্ন উদ্ধার করেন। শনিবার চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটে
প্রশ্ন পত্র ফাঁস করতে গিয়ে আটক!

প্রশ্ন পত্র ফাঁস করতে গিয়ে আটক!

নিজস্ব প্রতিবেদক  : এসএসসি পরীক্ষার ইংরেজী দ্বিতীয় পত্র প্রশ্ন ৫০০ টাকায় কিনে ফাঁস করার অভিযোগে মাদারীপুর সদর উপজেলা থেকে জোবায়দুল ইসলাম (২৮) নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মাদারীপুর জেলা প্রশাসকের (ডিসি) সহায়তায় ঐ যুবককে আটক করে পুলিশ। পরে ওই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের জন্য মাদারীপুর সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে ঈগল পরিবহনে ঢাকা থেকে বরগুনা যাওয়ার সময় জোবায়দুল মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস করছে, এমন খবর এক এনজিও কর্মী ডিসিকে জানায়। সংবাদ পেয়ে ডিসি পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে মোস্তফাপুর এলাকা থেকে জোবায়দুল আটক করেন। আটককৃত জোবায়দুলের কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন ও একটি নোটবুক উদ্ধার করা হয়। আটককৃত জোবায়দুল ইসলাম পুলিশকে জানান, ‘এসএসসি সাজেশন-২০১৮’ নামের একটি ফেসবুক পেইজে কিছুদিন আগে তিনি যোগ দেন। এর পর সেই পেইজের সূত্
ফাঁস হওয়া প্রশ্নেই দ্বিতীয় দিনের পরীক্ষা

ফাঁস হওয়া প্রশ্নেই দ্বিতীয় দিনের পরীক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক  : ফাঁস হওয়া প্রশ্নেই নেয়া হলো এসএসসির বাংলা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা। বাংলা প্রথম পত্রের পর দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্নও পরীক্ষা শুরুর দেড় ঘণ্টা আগে ফাঁস হয়ে ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়। তবে বরাবরের মতো এবারো প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে বোর্ড কর্তৃপক্ষ। প্রশ্ন ফাঁসের কোনো খবর তাদের কাছে নেই- এমন মন্তব্য করে আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার সরকার মানবজমিনকে বলেন, প্রশ্ন ফাঁসের খবর আমি বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়ায় দেখেছি। তবে এ খবরের সত্যতা পাইনি। তারপরও বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। পরীক্ষা বাতিলের কোনো কারণ দেখছি না। বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, বোর্ড বা বিজি প্রেস থেকে এখন আর প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে না। ৯টার পর ফাঁস হওয়ার মানে পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে যুক্ত। যাই হোক না কেন, ফেসবুকে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন ভাইরাল করে দেয়ার ঘ