শিল্প ও সাহিত্য

শেখ হাসিনার নতুন বই ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’ প্রকাশিত

শেখ হাসিনার নতুন বই ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’ প্রকাশিত

প্রাইম ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন বই ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’ প্রকাশিত হয়েছে। শিশু-কিশোরদের উপযোগী হলেও সব বয়সের পাঠকদের কাছে বইটি গ্রহণযোগ্য হয়েছে। শেখ রাসেলের জন্মগ্রহণ থেকে শুরু করে তাঁ জীবনকাহিনী এবং ঘাতকের হাতে নির্মমভাবে নিহত হওয়ার ঘটনাপ্রবাহ বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে। ছোটদের উপযোগী বইটি শেখ হাসিনা লিখেছেন গল্প বলার আকারে। সহজ-সরল ভাষায় লেখার কারণে শিশুদের জন্য অনন্য এক গ্রন্থ হিসেবে ইতোমধ্যে সারা জাগিয়েছে বইটি। বইটিতে শেখ হাসিনা শেখ রাসেলের ছোটবেলা থেকে শুরু করে পুরো জীবনের অনেক ঘটনা, জীবন-যাপন, মা-বাবা, ভাই-বোনের সাথে তার সময় কাটানো, পড়ালেখা, স্বজনদের সাথে বন্দিজীবন, ঘাতকদের হাতে নিহত হওয়ার বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে। বইয়ের ২১ পৃষ্ঠায় কারাগারে বঙ্গবন্ধুর সাথে সাক্ষাৎ করতে যাওয়ার বিষয়ে শেখ হাসিনা লিখেছেন ‘আব্বার সঙ্গে প্রতি ১৫ দিন পর আমরা দেখা করতে য
‘যে দল ভালো খেলে সে দল জিতুক, সব সময়ই চাই’

‘যে দল ভালো খেলে সে দল জিতুক, সব সময়ই চাই’

প্রাইম ডেস্ক : শুরু হয়েছে বিশ্বকাপ, চারিদিকে বিশ্বকাপের উন্মাদনা। জয় নিয়ে হিসেব কষছেন ক্রীড়া বিশেষজ্ঞরা। কে হতে যাচ্ছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। এরইমধ্যে অনেক ক্রীড়ামোদিরা তাদের প্রিয় দলকে সাপোর্ট দিচ্ছেন। তেমনি বসে নেই ভারতে নির্বাসিত বাংলাদেশের আলোচিত লেখিকা তসিলিমা নাসরিন। তিনিও প্রকাশ করেছেন নিজের অভিব্যাক্তি। বিশ্বকাপে কোন কোন দলের জয় চান তার একটি তালিকা প্রকাশ করেছেন তিনি। মঙ্গলবার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি এ তালিকা প্রকাশ করেন।তসলিমা নাসরিন স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘যে দল ভালো খেলে সে দল জিতুক, সব সময়ই চাই। কিন্তু কোন দল জিতলে ভালো লাগবে -- তারও তো একটা লিস্ট চাই।রোববার বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে জিতুক চেয়েছি। সোমবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাকিস্তান জিতুক চেয়েছি। আজ শ্রীলংকার বিরুদ্ধে আফগানিস্তান জিতুক চাইবো, পরশু দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতে জিতুক চা
পাঁচ কীর্তিমান বাঙালি পাচ্ছেন ‘বিশ্ব বাঙালি পুরস্কার-২০১৯’

পাঁচ কীর্তিমান বাঙালি পাচ্ছেন ‘বিশ্ব বাঙালি পুরস্কার-২০১৯’

প্রাইম ডেস্ক : ভাষা আন্দোলন এবং গবেষণাসহ সমাজে বিশেষ অবদান রাখায় পাঁচ কীর্তিমান বাঙালি পাচ্ছেন ‘বিশ্ব বাঙালি পুরস্কার-২০১৯’। তারা হলেন- অধ্যাপক এমিরেটাস সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী (বাংলাদেশ), অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ (বাংলাদেশ), অধ্যাপক সুভাষ চন্দ্র মুখোপাধ্যায় (ভারত), কবি পার্থ বসু (ভারত) ও অধ্যাপক তপোধীর ভট্টাচার্য (ভারত)। শনিবার (৩০ মার্চ) রাজধানীর পরীবাগস্থ সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্রে সংবাদ সম্মেলন করে এই পাঁচজনকে এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত করে বিশ্ব বাঙালি সংঘ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সভাপতি কবি ও সম্পাদক রাজু আহমেদ মামুন। মনোনীত কীর্তিমান বাঙালিদের নাম ঘোষণা করেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সাবেক সেক্রেটারি জেনারেল আখতারুজ্জামান। এসময় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিশ্ব বাঙালি সংঘের সদস্য মজিব মহম্মদ। উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় একটি অনুষ্ঠান করে এই সম্
“পুলিশের অবদান;আর সম্মান”

“পুলিশের অবদান;আর সম্মান”

এম,এ আহাদ খান: পুলিশ হল একটি নাম জীবিত অবস্থায় তোমার কতশত দাম, পুলিশ তুমি দায়িত্বের তাগিদে খুব কম দিনই কাটাও প্রিয়জনের সাথে। পুলিশ তুমি একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধে, অকাতরে রক্তঢেলে প্রাণ দিয়েছ পাকসেনা আর ঘাতকদের বিরুদ্ধে। পুলিশ তোমায় রক্ষা করেনি পঁচাত্তরে জাতির জনকের হত্যাকারী আর শেখ রাসেলের কোমল প্রাণ হরণকারী। পুলিশ তুমি আসলেই বোকা নাকি অবলা দেশ প্রেমিকা, নইলে কেন তুমি আবারো দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় তের কিংবা চৌদ্দ সালে এসেও নিজেকে করলে অকাতরে দান। পুলিশ তোমার দেশেরতরে রক্তদান, সতের সালে এসে তা হয়নি অম্লান তাই তো আজ তোমার প্রিয়জন প্রিয়সন্তান, রাষ্ট্রব্যাপী তারা পেল "পুলিশ মেমোরিয়াল ডে" আর পেল অঢেল সম্মান।
২৪ বছর হয়েছে, সেই এক দু’মাস এখনও শেষ হয়নি

২৪ বছর হয়েছে, সেই এক দু’মাস এখনও শেষ হয়নি

তসলিমা নাসরিন: আজ ২৪ বছর আমি নির্বাসিত। দেশে আমাকে প্রবেশ করতে দেয় না দেশের কোনও সরকারই। আমি অবৈধভাবে দেশে প্রবেশ করতে চাই না। আমাদের নির্লজ্জ সরকারেরা কিন্তু অবৈধভাবে আমাকে দেশে প্রবেশে বাধা দিচ্ছে। ২৪ বছর আগে খালেদা জিয়ার সরকার আমাকে দেশের বাইরে বের করে দিয়েছিল কারণ মৌলবাদিরা দেশ জুড়ে তাণ্ডব করছিল। দেশের অবস্থা শান্ত হলে এক দু’মাস পর দেশে ফিরতে পারবো, এরকমই বলা হয়েছিল। ২৪ বছর শেষ হয়েছে, অপেক্ষার সেই এক দু’মাস এখনও শেষ হয়নি, আজও আমাকে আমার নিজের দেশে ফিরতে দেওয়া হয় না। ইতিহাস বলে, পৃথিবীর অনেক প্রতিবাদী লেখক শিল্পীকেই নির্বাসন দিয়েছে বিভিন্ন দেশের সরকার, কিন্তু সরকার বদল হলে সেই লেখক শিল্পীরা ফিরতে পেরেছেন নিজ বাসভূমে। কিন্তু আমার বেলায় সেটিও হয় না। সরকার বদল হয়, আমার ভাগ্য বদল হয় না। আসলে কোনও সরকারই লেখকের বাক স্বাধীনতায় বা মত প্রকাশের অধিকারে বিশ্বাস করে না, সে কারণেই সমস্যা। পশ্চ
বাংলা একাডেমীর সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ ঘোষনা

বাংলা একাডেমীর সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ ঘোষনা

প্রাইম ডেস্ক : ‘বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরষ্কার ২০১৮’ ঘোষনা করা হয় আজ সোমবার। মোট ১০টি শাখার মধ্যে এবার ৪টি শাখার পুরস্কার দেওয়া হয়। পুরস্কারের অর্থমূল্য ২লক্ষ টাকা। পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন-কবিতায় কাজী রোজী, কথাসাহিত্য মোহিত কামাল, প্রবন্ধ / গবেষণায় সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সাহিত্যে আফসান চৌধুরী। এ উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন হয় একাডেমির ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্ ভবনের চতুর্থ তলার শহিদ মুনীর চৌধুরী সভাকক্ষে বিকাল সাড়ে ৪টায়। এতে একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী এ পুরস্কার ঘোষনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন একাডেমির সচিব আব্দুল মান্নান ইলিয়াস এবং একাডেমির পরিচালক, উপপরিচালক ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আগামী ১লা ফেব্রুয়ারি অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯’র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখকদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে পুর
মনীষা কৈরালার আত্মজীবনীমূলক বই প্রকাশ

মনীষা কৈরালার আত্মজীবনীমূলক বই প্রকাশ

প্রাইম ডেস্ক : ক্যান্সার থেকে ফিরে বলিউড অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা তার আত্মজীবনীমূলক একটি বই প্রকাশ করেছেন। বইটির নাম  রেখেছেন ‘হাউ ক্যান্সার গেভ মি এ নিউ লাইফ’(কিভাবে ক্যান্সার থেকে ফিরে এসেছি)। ৮ই জানুয়ারি মঙ্গলবার মুম্বইয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন তিনি। প্রকাশনা অনুষ্ঠানে মনীষার পরিবারের সদস্য ও বলিউডের বন্ধু-বান্ধবরা উপস্থিত ছিলেন। বই প্রকাশনা উৎসবে উপস্থিত থাকা অতিথিদের সঙ্গে তোলা একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেছেন মনীষা। ক্যাপশনে লিখেছেন-পারিবারিক বন্ধুদের সঙ্গে। উল্লেখ্য, মনীষা কৈরালা ২০১২ সালে মরণব্যাধি ‘এ ওভারিয়ান’ ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। বইটিতে তিনি তার জীবন-মরণের সন্ধিক্ষণ, ক্যান্সারের ভয়াবহতা এবং বাস্তব অভিজ্ঞতার পাশাপাশি রোগটি সম্পর্কে বিশেষ কিছু পরামর্শ তুলে ধরেছেন। 
এ প্রথা বিলুপ্ত হোক

এ প্রথা বিলুপ্ত হোক

তসলিমা নাসরিন : পৃথিবীতে ৩০টি দেশের ৩০ কোটি মেয়ে যোনিচ্ছেদের যন্ত্রণা নিয়ে বেঁচে আছে। ৩০টি দেশের ২৭টি দেশই আফ্রিকার দেশ, সোমালিয়া, জিবুতি, মিসর, সিয়েরা লিওন, ইথিওপিয়া, নাইজেরিয়া এরকম আরও অনেক। বাকি দেশগুলোর মধ্যে আছে ইন্দোনেশিয়া, কুর্দিস্থান, ইয়েমেন, ভারত, পাকিস্তান। হ্যাঁ, ভারত এবং পাকিস্তান। তবে ভারত আর পাকিস্তানের সব মুসলমানের মধ্যে যোনিচ্ছেদ প্রথা নেই, আছে দাউদি বহরা মুসলমানদের মধ্যে। এদের পূর্ব পুরুষেরা কোনও এককালে ইয়েমেন থেকে এই উপমহাদেশে পাড়ি দিয়েছিল, অথবা তারও আগে গুজরাটের কেউ কেউ মিসরে গিয়ে শিখে এসেছিল শিয়া সম্প্রদায়ের ইসমাইলি গোষ্ঠীর সংস্কৃতি। শুধু উপমহাদেশেই নয় এশিয়ার অনেক দেশেই, এমনকী ইউরোপ আমেরিকার অভিবাসীদের মধ্যে লুকিয়ে চুরিয়ে এই প্রথাটি মানা হয়। প্রথাটি ঠিক কী? প্রথাটি হলো, শৈশবে বা কৈশোরে মেয়েদের যোনির কিছু অংশ কেটে ফেলে দেওয়া হয়। যৌনাঙ্গ কর্তনের মূল উদ্দেশ্য হলো, যৌন
আজ বাইশে শ্রাবণ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মহাপ্রয়াণ দিবস

আজ বাইশে শ্রাবণ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মহাপ্রয়াণ দিবস

প্রাইম ডেস্ক : আজ বাইশে শ্রাবণ, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৭তম মহাপ্রয়াণ দিবস। ১৩৪৮ বঙ্গাব্দের ২২ শ্রাবণ তিনি কলকাতায় পৈত্রিক বাসভবনে মৃত্যুবরণ করেন। কলকাতার জোড়াসাঁকোর বিখ্যাত ঠাকুর পরিবারের দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর ও সারদাসুন্দরী দেবীর চতুর্দশ সন্তান রবীন্দ্রনাথ বাংলা সাহিত্যের আকাশে রবি হয়েই উদিত হয়েছিলেন। জন্ম ১২৬৮ বঙ্গাব্দের পঁচিশে বৈশাখ। রবীন্দ্রনাথ কবি, উপন্যাসিক, নাট্যকার, সঙ্গীতজ্ঞ, প্রাবন্ধিক, দার্শনিক, ভাষাবিদ, চিত্রশিল্পী, গল্পকার- সবগুলো শৈল্পিক গুণের সমন্বিত এক বিস্ময়কর প্রতিভা। আট বছর বয়সে তিনি কবিতা লেখা শুরু করেন। বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় তার সাহিত্যকর্ম অনুদিত হয়েছে। বিভিন্ন দেশের পাঠ্যসূচিতে তার লেখা সংযোজিত হয়েছে। প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘কবিকাহিনী’ প্রকাশিত হয় ১৮৭৮ সালে। ১৯১০ সালে প্রকাশিত হয় তার ‘গীতাঞ্জলী’ কাব্যগ্রন্থ। এই কাব্যগ্রন্থের ইংরেজী অনুবাদের জন্য তিনি ১৯
সাইফুল ইসলাম বাচ্চু’র কবিতা `ওগো বকুলের মা’

সাইফুল ইসলাম বাচ্চু’র কবিতা `ওগো বকুলের মা’

                     ওগো বকুলের মা                         বর্ষার বিদায় বেলায়,                     বারংবার ভেসে উঠে সেই স্মৃতি।                           অদূরের মসজিদ থেকে               ভেসে আসছে মোয়াজ্জেমের সু-মধুর সুর।                      ফিস ফিস করে যেন বলছো আমায়-                                    আযান হচ্ছে,উঠুন।                    ক্ষাণিক পূর্বে যে রমনীর ভালোবাসায়                    মজে ছিলাম,ছিলাম এক রঙ্গ মহলে।                  তারই ডাকে ছুটে চললাম মসজিদেরই দিকে।             মাঠ-ঘাটে সারাদিনের মতে কাজ করতাম অনেক দূরে                 প্রতি সন্ধ্যেতে ক্লান্ত হয়ে যখন ফিরতাম বাড়ি                  গামছা,লঙ্গি আইনা দিতে তাড়াতাড়ি।                   লেবুর পাতা, মিঠায় দিয়া-                        দিতে এনে শরবত।                    খাওনের পর, মাথায় হাত বুলাইয়া ঘুম পাড়াইতা